Latest News

Nirmala Sitaraman-Congress: নির্মলা পেট্রল, ডিজেলের অন্তঃশুল্ক কমানোর ঘোষণা করতেই, কংগ্রেস কেন বলল ধোঁকা দিচ্ছে!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন শনিবার সন্ধ্যায় টুইট করে জানিয়েছেন, পেট্রল ও ডিজেলের উপর অন্তঃশুল্ক যথাক্রমে ৮ টাকা ও ৬ টাকা কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এর ফলে পেট্রলের দাম কমবে সাড় ৯ টাকা। ডিজেল প্রতি লিটারে ৭ টাকা সস্তা হবে। কিন্তু নির্মলা এই ঘোষণা করতেই ‘জুমলা’ বলে চেঁচিয়ে উঠল কংগ্রেস (Nirmala Sitaraman-Congress)। তাঁদের বক্তব্য, ফের ধোঁকা দিচ্ছে নরেন্দ্র মোদী সরকার। সাধারণ মানুষকে অঙ্কের কারসাজি দিয়ে বোকা বানানোর চেষ্টা হচ্ছে।

কেন এ কথা বলছে কংগ্রেস? (Nirmala Sitaraman-Congress)

কংগ্রেসের প্রধান মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা বলেছেন, এই সরকার পেট্রল ও ডিজেলের উপর অতিশয় চড়া হারে অন্তঃশুল্ক চাপিয়ে রেখেছে। ২০১৪ সালে ইউপিএ সরকারের সময়ে পেট্রলের উপর মাত্র অন্তঃশুল্ক ছিল লিটার প্রতি মাত্র ৯ টাকা ৪৮ পয়সা। তা বাড়িয়ে মোদী সরকার লিটার প্রতি ২৭.৯০ টাকা করেছে। অর্থাৎ মানুষের উপর বোঝা বাড়িয়ে মাজা ভেঙে দিয়েছে। ২০১৪ সালের তুলনায় প্রায় ১৯ টাকা বেশি অন্তঃশুল্ক চাপিয়েছিল মোদী সরকার। তার মধ্যে মাত্র ৮ টাকা শুল্ক কমানো হল। এখনও অতিরিক্ত ১০ টাকা অন্তঃশুল্ক চাপিয়ে রাখা হয়েছে। তা না কমালে বুঝতে হবে স্রেফ ধোঁকা দিচ্ছে কেন্দ্র।

উজ্জ্বলার গ্যাসে ২০০ টাকা ভর্তুকি মিলবে, ঘোষণা কেন্দ্রের

রণদীপ জানিয়েছেন, ২০১৪ সালে ডিজেলের উপর অন্তঃশুল্ক ছিল মাত্র ৩ টাকা ৫৬ পয়সা। তা থেকে বাড়িয়ে ডিজেলের উপর অন্তঃশুল্ক ২১.৮০ টাকা করেছে কেন্দ্র। শনিবার মাত্র ৬ টাকা কমানো হয়েছে। এখনও ১২ টাকা অন্তঃশুল্ক কমানোর জায়গা রয়েছে মোদী সরকারের।

বস্তুত পেট্রল, ডিজেলের দাম কমানো নিয়ে শনিবার সন্ধে থেকে পুরোদস্তুর চাপানউতোর শুরু হয়ে গিয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় ধারাবাহিক টুইট করে সীতারামন জানিয়েছেন, এর ফলে কেন্দ্রের সরকারের ১ লক্ষ কোটি টাকা রাজস্ব ক্ষতি হবে। নির্মলা আর্জি জানিয়েছেন, এর পর রাজ্য সরকারগুলিও যেন একই ভাবে কর কমিয়ে সাধারণ মানুষকে সুরাহা দেওয়া চেষ্টা করে। তাঁর কথায়, আমি সব রাজ্যকে অনুরোধ করছি, বিশেষ করে যে রাজ্যগুলি আগের বার তথা গত নভেম্বর মাসে কর কমায়নি তাদের বলছি, আপনারাও একই রকম ছাড় দিন। তাতে সাধারণ মানুষের উপকার হবে।

কদিন আগে সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পেট্রল-ডিজেলের দামের প্রসঙ্গ তুলেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, বেশ কয়েকটি রাজ্য কর কমিয়ে মানুষকে সুরাহা দিয়েছে। কিন্তু অনেক রাজ্য তা করেনি। যেমন পশ্চিমবঙ্গ, তামিলনাড়ু, মহারাষ্ট্র, তেলঙ্গনা, ঝাড়খণ্ড। তার ফলে একে তো এই রাজ্যগুলোতে মানুষের দুর্ভোগ অব্যাহত রয়েছে। তেমনই পাশাপাশি দুই রাজ্যের মধ্যে বৈষম্যের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

নরেন্দ্র মোদীর এ হেন কথার কড়া জবাব দিতে চেয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেছিলেন, পশ্চিমবঙ্গ আর ছাড় দেবে কী করে? ২০১৪ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত পেট্রোপণ্যে কর বাবদ কেন্দ্র ১৭ লক্ষ কোটি টাকা অতিরিক্ত আয় করেছে। আর রাজ্যের বেলায় জ্ঞানের কথা! কেন্দ্রের কাছে ৯২ হাজার কোটি টাকা পাওনা রয়েছে রাজ্যের। আগে সেই টাকা দিক কেন্দ্র। এদিন সেই একই বলল কংগ্রেসও। তা হল, কেন্দ্র অতিরিক্ত অন্তঃশুল্ক চাপিয়ে ইতিমধ্যে বহু লক্ষ কোটি টাকা রাজস্ব কামিয়ে নিয়েছে। এ বার নিস্তার দিক সাধারণ মানুষকে।

You might also like