Latest News

লকডাউনে লটারি! কাজ হারিয়ে ৩১ কোটি জিতলেন যুবক

দ্য ওয়াল ব্যুরো: একেই বলে কপাল!

বিশ্ব জোড়া মহামারীতে কাজ হারাচ্ছেন অসংখ্যা মানুষ। শুধু ভারতবর্ষ নয়, কর্মী ছাঁটাই চলছে সারা দুনিয়া জুড়ে। পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার এক সিকিউরিটি গার্ডের চাকরি গিয়েছে এই সময়ে। কার্যত দিশেহারা হয়ে পড়েছিলেন ওই যুবক। বাড়িতে রয়েছে স্ত্রী এবং তিন বছরের মেয়ে। জমানো টাকায় আর ক’দিন চলে!

এসব ভাবতে ভাবতেই একদিন পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার জনপ্রিয় ওজেড লোটোর টিকিট কেটেছিলেন কাজ হারানো যুবক। আর তাতেই বদলে গেল ভাগ্য।

ভারতীয় মুদ্রায় ৩১ কোটি টাকা জিতেছেন ওই অস্ট্রেলিয়ান যুবক। হাসি ফুটেছে পরিবারের মুখেও। তিনি সংবাদমাধ্যমে বলেছেন, হঠাৎই একদিন সকালবেলা ফোনে লটারি জেতার মেসেজ আসে। প্রথমটা ভেবেছিলেন ভুয়ো। কিন্তু তারপর কৌতূহলেই খুলে ফেলেন ওজেড লোটোর ওয়েবসাইট। আর তাতে দেখা যায় তিনি যে সিরিজের লটারি কেটেছিলেন, তাতে তাঁর টিকিট নম্বরই সবার উপরে। সম্বিত ফেরে যুবকের।

তিনি জানিয়েছেন, “আমি নিজে অভাবের জন্য স্কুলের গণ্ডি টপকাতে পারিনি। আমার ইচ্ছে ছিল মেয়েটাকে ভাল করে পড়াশোনা শেখাব। কাজ হারিয়ে ভেঙে পড়েছিলাম। মেয়েটার মুখের দিকে তাকালে অসহায় লাগত নিজেকে। কিন্তু এই লটারি আমার জীবন বদলে দিয়েছে।”

গত ১৫ মে এমনই ঘটেছিল আরবে থাকা কেরলের এক যুবকের ক্ষেত্রে। কর্মসূত্রে আবু ধাবিতে থাকা কেরলের কোঝিকোড়ের যুবক আসাইন মহম্মদের ফোন বেজে ওঠে সাত সকালে। ফোন ধরার পর ও প্রান্ত থেকে তাঁকে বলা হয়, ২৪ কোটি টাকার জ্যাকপট জিতেছেন তিনি। সংবাদমাধ্যমকে আসাইন বলেছেন, “খবরটা শোনার পর আনন্দে আত্মহারা হয়ে ফোন কেটে দিয়েছিলাম। কিন্তু পরক্ষণেই মনে হয়, কেউ বোধহয় জালিয়াতি করার জন্য এই ফোন করেছে।” কিন্তু ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ভুল ভাঙে অসাইনের। তিনি জানান, দুবাইয়ের স্থানীয় একটি অনলাইন সংবাদমাধ্যমে তাঁর লটারি জেতার খবর প্রকাশ হয়। তারপর তিনি নিশ্চিত হন।

আবু ধাবির একটি বেকারিতে সেলস বিভাগের কর্মচারী কোঝিকোড়ের এই যুবক। তিনি সংবাদমাধ্যমে বলেছেন, “এর আগে তিনবার বন্ধুদের থেকে ধার নিয়ে টিকিট কেটেছিলাম। ভাগ্য ফেরাতে ভেবেছিলাম যদি একবার লটারি জেতা যায় তাহলে সবটা বদলে যাবে।” তবে এবারের টিকিট যে নিজের পয়সাতেই কেটেছিলেন তাও বলেন আসাইন।

You might also like