Latest News

মিরিকে চালু হল হস্তশিল্পের ভাসমান বাজার

পশ্চিমবঙ্গ খাদি ও গ্রামীণ শিল্পোদ্যোগ এবং মিরিক পুরসভার উদ্যোগে চালু হল এই বাজার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মিরিক পুরসভার উদ্যোগে চালু হয়ে গেল হস্তশিল্পের ভাসমান বাজার বা ফ্লোটিং মার্কেট। পশ্চিমবঙ্গ খাদি ও গ্রামীণ শিল্পোদ্যোগ (ওয়েস্ট বেঙ্গল খাদি অ্যান্ড ভিলেজ ইন্ডাস্ট্রিজ বোর্ড) ও মিরিক পুরসভার উদ্যোগে শুক্রবার এই বাজারটি আনুষ্ঠানিক ভাবে চালু হয়। উদ্বোধন করেন মিরিক পুরসভার চেয়ারম্যান লালবাহাদুর রাই।

ভাসমান বাজারের প্রতি অনেক ক্রেতাই আগ্রহী হচ্ছেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এমন বাজার রয়েছে, কলকাতায় পাটুলির কাছেও এমন একটি বাজার চালু হয়েছে কয়েক বছর আগে। এবার ভাসমান বাজার চালু হল মিরিকে। মিরিক লেকের তীর ঘেঁষে গড়ে উঠেছে হস্তশিল্পের ভাসমান বাজার। বাজারটি দেখতেও ছবির মতোই সুন্দর।

মিরিক লেকের চারপাশে ঘুরে বেড়ানো ও বোটিং করা পর্যটকদের কাছে চিরকালীন আকর্ষণ। এবার তার সঙ্গে যোগ হয়েছে ভাসমান বাজারে কেনাকাটা করা। বোটিং করার ফাঁকে ভাসমান বাজার থেকে পর্যটকরা কেনাকাটা করে নিতে পারবেন নিজের পছন্দের জিনিস ও উপহার।

পাহাড়ের বাসিন্দাদের হাতে তৈরি নানা জিনিস মিলবে এই ভাসমান বাজারে। এতে আয় বাড়বে পাহাড়ের হস্তশিল্পীদের। এই বাজারে পাওয়া যাচ্ছে নানা ধরনের পুতুল, হাতে তৈরি উলের সোয়েটার, টুপি, হাত মোজা, ঘর সাজানোর নানা ধরনের সামগ্রী। এছাড়া দার্জিলিংয়ের প্রধান তিন আকর্ষণও এখানে মজুত রয়েছে — দার্জিলিংয়ের বিশ্ব বিখ্যাত সুগন্ধী চা, মধু ও কমলালেবু।

দার্জিলিংয়ে যাঁরা বেড়াতে যান তাঁরা মিরিক ঘুরে যান। আলাদা ভাবে মিরিকে বেড়াতে যাওয়া পর্যটকের সংখ্যা খুব কম। এই নতুন আকর্ষণের জন্য মিরিকে পর্যটকের সংখ্যা বাড়বে বলে আশা মিরিক পুরসভার। তবে তাদের লক্ষ্য মিরিককে আলাদা পর্যটনকেন্দ্র হিসাবে পর্যটন মানচিত্রে জায়গা করে দেওয়া।

মিরিক পুরসভার চেয়ারম্যান লালবাহাদুর রাই জানান, ‘‌মিরিককে পর্যটন মানচিত্রে তুলে ধরতে কয়েক কোটি টাকা ব্যয় করে লেকের সৌন্দর্যায়ন করার কাজ জোরকদমে চলছে। বাহারি ফুলের বাগান তৈরি করা হয়েছে। রাজ্য পর্যটন দফতর, মিরিক পুরসভা ও জিটিএ যৌথ ভাবে উন্নয়নের কাজ করছে। এই ফ্লোটিং মার্কেট পর্যটকদের কাছে আরও আকর্ষণীয় হবে।’‌

লেকের পাশে প্রচুর দোকান রয়েছে। সেখানে কেনাকাটার ধুম লক্ষ্য করা যায়। ইতিমধ্যেই পর্যটকের সংখ্যা মিরিকে ৩০ শতাংশ বেড়েছে বলে জানিয়েছেন লালবাহাদুর রাই।

মিরিক লেকের ওপর ফুটব্রিজটি সবসময়ই পর্যটকদের কাছে আকর্ষণীয়। লেকের জলে রঙিন মাছ দেখতে দেখতে বোটিং করার আকর্ষণও যথেষ্ট। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে মিরিক কারও চেয়ে কম নয়। মিরিকের গুরুত্ব বাড়াতে এবার যোগ করা হল হস্তশিল্পের ভাসমান বাজার।

You might also like