Latest News

প্রতিবাদ উধাও, কোচবিহারে পা রাখতেই নিশীথের নামে জয়ধ্বনি গেরুয়া বাহিনীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দোলের দিন সন্ধেবেলা কেন্দ্রীয় বিজেপি দফতর থেকে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হয়েছে কী হয়নি, ওমনি ময়দানে নেমে পড়েছিলেন কোচবিহারের বিজেপি কর্মীদের একাংশ। দলের জেলা দফতরে ভাঙচুর করে, জেলা সভানেত্রী মালতী রাভা রায়ের গাড়ি আটকে দিয়ে সে কী কাণ্ড! দাবি কী? ‘তৃণমূল খেদানো’ নিশীথ প্রামাণিককে প্রার্থী করা যাবে না। চব্বিশ ঘণ্টা কাটল না। কোচবিহারে পা রাখলেন নিশীথ। আর তাতেই প্রতিবাদ উধাও।

গেরুয়া আবিরে রেঙে, কর্মী সমর্থকদের মিছিলে ভেসেই নিশীথ গেলেন রাসমেলা মাঠে মদনমোহন মন্দিরে পুজো দিতে। সঙ্গে জেলা সভানেত্রী মালতী রাভা রায়। পুজো দিয়ে নিশীথ গেলেন জেলা দফতরে। সেখানে তাঁকে জিজ্ঞেস করা হয়, জেতার ব্যাপারে কতটা আশাবাদী? বছর ৩১-এর মিতভাষী, দোর্দণ্ডপ্রতাপ নেতার মৃদু স্বরে জবাব, “আজকে এই মদনমোহন মন্দিরেই জয় লেখা হয়ে গিয়েছে।”

গত মাসের ২৮ তারিখ দলবল নিয়ে দিল্লিতে গিয়ে মুকুল রায়ের হাত ধরে বিজেপি-তে যোগ দেন তৃণমূল থেকে বহিষ্কৃত নিশীথ। তারপর থেকে নিজের শহরে ফেরেননি। ছিলেন দিল্লিতেই। বিজেপি নেতাদের আশঙ্কা ছিল, বাংলায় ফিরলেই নিশীথকে কেস দিয়ে ভিতরে ঢুকিয়ে দিতে পারে পুলিশ। তাই দিল্লিতেই রেখে দেওয়া হয়েছিল তাঁকে। নির্বাচন ঘোষণা হওয়ার পরও ফেরেননি। এক্কেবারে প্রার্থী হয়েই কোচবিহারে পা রাখলেন একদা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের আস্থার নেতা।

লুকস বদলেছে তাঁর। বরাবরের স্টাইলিশ এই যুব নেতার এখন ঘাড় পর্যন্ত চুল। এ দিন নিশীথ বলেন, “বিজেপি-তে যোগ দিয়ে বুঝতে পারছি, এত দিন যে দলে ছিলাম, সেখানে আদর্শ বলতে কিস্যু ছিল না।” এই ক’মাস আগেও দিনহাটা—সহ সারা কোচবিহার জেলায় তাঁর নামে বাঘে-গরুতে এক ঘাটে জল খেত। একসময় নিশীথ ছিলেন যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের খাস লোক। কিন্তু পরে তাঁর সঙ্গেই সম্পর্কে চিড় ধরে। গত কয়েক বছর কোচবিহার জুড়ে যত রাজনৈতিক সংঘর্ষ হয়েছে তার সিংহভাগই তৃণমূল বনাম তৃণমূল। মাদার বনাম যুব। মন্ত্রী রবি ঘোষের গোষ্ঠী বনাম নিশীথ বাহিনী। কিন্তু তৃণমূল নিশীথকে বহিষ্কার করার পর মাস দেড়েক চুপচাপ ছিলেন বছর তিরিশের সুদর্শন এই যুবক। তারপরই মুকুল রায়ের হাত ধরে সোজা বিজেপি।

ওয়াই ক্যাটেগরির নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে নিশীথের জন্য। কাল যে জেলা দফতরে বিজেপি কর্মীদের একাংশ স্লোগান দিয়েছিল, “বিজেপি-র নামে দিনহাটার স্মাগলারকে একটিও ভোট নয়”, সেখানেই আজ নিশীথের নামে জয়ধ্বনি। বৃহস্পতিবার রাতে পরিস্থিতি এমন জায়গায় গিয়েছিল যে, জেলা সভানেত্রীকে বলতে হয়, “বিকল্প প্রার্থী হিসেবে দীপক বর্মন মনোনয়ন তুলবেন।” কিন্তু নিশীথ জেলায় পা রাখতেই বদলে গেল ছবিটা।

আরও পড়ুন

https://www.four.suk.1wp.in/news-kolkata-bjp-accused-tmc-as-their-workers-injured-in-lake-market/

You might also like