Latest News

সমস্ত দেশীয় টিকা প্রস্তুতকারক সংস্থাকে ক্ষতিপূরণের দায় থেকে মুক্তি দিতে হবে, দাবি সেরাম কর্তার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নিয়ম সবার জন্য সমান। যদি মোডার্না কিংবা ফাইজারকে ক্ষতিপূরণের দায় থেকে রেহাই দেওয়া যেতে পারে, তাহলে তাদেরও একই সুযোগ পাওয়া উচিত। এমনটাই জানাল কোভিশিল্ড প্রস্তুতকারক সংস্থা সেরাম ইন্সটিটিউট।

ক্ষতিপূরণের প্রশ্নে স্বদেশি ও বিদেশি— দু’ধরনের সংস্থাকে একই সুবিধা দেওয়ার পক্ষে সওয়াল করেছে সেরাম কর্তৃপক্ষ। উল্লেখ্য, কেন্দ্র ইতিমধ্যে কোনও সংস্থাকেই ক্ষতিপূরণের দায় থেকে মুক্তি সংক্রান্ত ছাড়পত্র দেয়নি। টিকা নেওয়ার পর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিলে তার জন্য আইনি রক্ষাকবচেরও কথাও বলা হয়নি। এই শর্তে এখনও অনড় ফাইজার এবং মোডার্নার মতো টিকা প্রস্তুতকারক সংস্থা। যা দেওয়া-না দেওয়ার উপর ভারতে ভ্যাকসিন সরবরাহের বিষয়টি অনেকখানি নির্ভর করছে বলে সূত্রের দাবি।

গোটা বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু না বললেও বুধবার স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়, বিশ্বের বাদবাকি দেশে এই ছাড়পত্র দেওয়া হলে ভারতও বিদেশি সংস্থাগুলোকে ক্ষতিপূরণের দায় থেকে রেহাইয়ের কথা ভেবে দেখবে। এই ইঙ্গিত পেয়েই আগাম আসরে নেমে পড়ে সেরাম। মোডার্না, ফাইজারের মতো একই তালিকায় তাদের ও দেশের অন্যান্য টিকাপ্রস্তুতকারক সংস্থার নাম থাকা উচিত বলে দাবি জানায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক সূত্র সংবাদ সংস্থা এএনআইকে জানান, বিদেশি সংস্থাগুলোকে ক্ষতিপূরণের দায় থেকে মুক্তি দিলে শুধু সেরাম নয়, সব দেশীয় সংস্থা একযোগে এই দাবি করবে।

উল্লেখ্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সহ বেশ কিছু দেশে ইতিমধ্যে ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক সংস্থাকে এই জাতীয় ঝঞ্ঝাটের বাইরে রাখা হয়েছে। সেক্ষেত্রে টিকা দেওয়ার পর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কিংবা অন্যান্য অসুবিধা দেখা দিলেও তাদের আইনি হাঙ্গামার মুখে পড়তে হবে না। যদিও ভারতে এত সহজে কাজ হাসিল হবে না বলেই মত বিশেষজ্ঞদের।

গোটা বিতর্কে মুখে কুলুপ এঁটেছে মোডার্না। অন্যদিকে ফাইজারের দাবি, তারা আপাতত কেন্দ্রের সঙ্গে ভ্যাকসিন সরবরাহ সংক্রান্ত আলোচনা জারি রেখেছে। তা শেষ না হওয়া পর্যন্ত এই ইস্যুতে চূড়ান্ত কিছু বলা সম্ভব নয়। অন্যদিকে ভ্যাকসিন পরিচালনার দায়িত্বে থাকা বিশেষজ্ঞ কমিটির প্রধান ভি কে পাল বলেন, আগামী মাসেই ফাইজারের নির্দিষ্ট ডোজ টিকা পাঠানোর কথা। তাদের দাবিদাওয়া কেন্দ্রকে জানানো হয়েছে।

You might also like