Latest News

বাতিল মাস্ক, গ্লাভস নষ্ট করতেও কিছু নিয়ম মানতে হবে, জানাল কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ড

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এবার বাতিল মাস্ক ও গ্লাভস নষ্ট করার ক্ষেত্রেও মানতে হবে কিছু নিয়ম। গাইডলাইন জারি করে সেকথা জানিয়েছে কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ড। জানানো হয়েছে, নষ্ট করার আগে অন্তত ৭২ ঘণ্টা অর্থাৎ তিনদিন বাতিল গ্লাভস ও মাস্ককে কাগজের ব্যাগের মধ্যে রাখতে হবে। তারপর তা নষ্ট করতে হবে। আক্রান্ত অথবা আক্রান্ত নয়, এমন দুই ব্যবহারকারীদের ক্ষেত্রেই মানতে হবে এই নিয়ম।

কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের তরফে মল ও অফিসগুলিকেও এই নির্দেশিকা পাঠানো হয়েছে। সেখানকার কর্মীদের ব্যবহৃত মাস্ক, গ্লাভস ও পিপিই কিট নষ্ট করার আগেও এই নিয়ম মানতে হবে। জানানো হয়েছে, “বাণিজ্যিক এলাকা, শপিং মল, অফিস, ইন্সটিটিউশন প্রভৃতি জায়গায় সাধারণ মানুষ যেসব পিপিই কিট ফেলে দেয়, সেগুলিকে একটি আলাদা জায়গায় ৩ দিন রাখতে হবে। তারপরে তা নষ্ট করতে হবে।”

সাধারণ মানুষের উদ্দেশে কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ড জানিয়েছে, “ব্যবহার করা বাতিল মাস্ক ও গ্লাভস নষ্ট করার আগে তা একটি কাগজের ব্যাগে অন্তত ৭২ ঘণ্টা রাখতে হবে। তারপরে এমনভাবে তা নষ্ট করতে হবে, যেন কোনওভাবেই কেউ তা পুনরায় ব্যবহার করতে না পারেন।”

এই নিয়ে চতুর্থবার কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের তরফে গাইডলাইন প্রকাশ করা হল, কী ভাবে করোনা প্রতিরোধে ব্যবহার করা সামগ্রী নষ্ট করতে হবে সেই বিষয়ে। এই গাইডলাইনে আরও বলা হয়েছে, আক্রান্ত ব্যক্তির উচ্ছিষ্ট খাবার ও ব্যবহার করা খালি জলের বোতল, গ্লাভস, মাস্ক ও পিপিই কিটের সঙ্গে নষ্ট না করে সলিড ওয়েস্টের সঙ্গে নষ্ট করতে।

নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, “উচ্ছিষ্ট খাবার, জুসের বোতল, খালি জলের বোতল ও অন্যান্য যে কোনও সামগ্রী, যা একজন করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি হাত দিয়েছেন, তা অন্য সলিড ওয়েস্টের সঙ্গে রাখতে হবে। কোনও মতেই যেন তা বাতিল মাস্ক, গ্লাভস ও পিপিই কিটের সঙ্গে না রাখা হয়। এই কাজের জন্য যেন হলুদ রঙের ব্যাগ ব্যবহার না হয়। হলুদ ব্যাগে বায়ো-মেডিক্যাল ওয়েস্ট যথা মাস্ক, গ্লাভস ও পিপিই কিট রাখা হবে।”

কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের তরফে আরও জানানো হয়েছে, আক্রান্ত রোগীদের খাবার ও অন্যান্য কাজে বায়ো-ডিগ্রেডেবল সামগ্রী ব্যবহার করতে। এই ধরনের সামগ্রী ব্যবহার করলে সহজেই তা নষ্ট করা যায়। তার থেকে কোনওভাবেই পরিবেশ দূষিত হয় না। তাই এই ধরনের সামগ্রী ব্যবহার করা বেশি সুরক্ষিত। তারসঙ্গে হাসপাতালের কর্মীদের মাথায় রাখতে হবে, যে ধরনের ব্যাগে যে ধরনের বর্জ্য পদার্থ নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, সেই ব্যাগেই যেন তা নেওয়া হয়। নইলে পরিবেশ আরও বেশি দূষিত হতে পারে।

স্পষ্টভাবে জানানো হয়েছে উচ্ছিষ্ট খাবার, জুসের বোতল, খালি জলের বোতল ও অন্যান্য যে কোনও সামগ্রী, যা একজন করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি হাত দিয়েছেন তার জন্য লাল ব্যাগ ব্যবহার করতে হবে। অন্যদিকে কোভিড ওয়ার্ডে ব্যবহার হওয়া মাস্ক, গ্লাভস, পিপিই কিট, হেড গিয়ার, শু কভার, নন প্লাস্টিক ও সেমি প্লাস্টিক সামগ্রী যেন হলুদ ব্যাগে নেওয়া হয়। এই কাজে যেন কোনও ভুল না হয় তার স্পষ্ট নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে।

You might also like