Latest News

লকডাউনে অভুক্ত পশু-পাখিদের খাবার জোগাতে নয়া উদ্যোগ রাজস্থান পুলিশের, হাত মেলাল একাধিক এনজিও

পশুদের জন্য চাপাটি বানিয়ে তা বিভিন্ন জায়গায় খাওয়ানো হচ্ছে। পুলিশকর্মীরাই গিয়ে নিজে হাতে গরু-কুকুরদের খাওয়াচ্ছেন। অন্যদিকে আবার পাখিদের জন্য গমের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

দ্য ওয়াল ব্যুরো: করোনা মোকাবিলায় দেশজুড়ে ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। এই সময়ে জরুরি দরকার ছাড়া কাউকে বাড়ির বাইরে বেরতে বারণ করা হয়েছে। এর ফলে সমস্যায় পড়েছে পথের কুকুর, গরু, বাঁদর ও পাখিরা। হোটেল, রেস্তোরাঁ বন্ধ। ফলে ফেলে দেওয়া খাবার নেই। বাড়িতেও বাড়তি খাবার নেই। এইসব পশু-পাখিদের খাবার সমস্যা দূর করতে উদ্যোগ নিয়েছে বিভিন্ন এনজিও। এবার রাজস্থান পুলিশকে এগিয়ে আসতে দেখা গেল। এইসব পশু-পাখিদের খাবারের জন্য এক অভিনব উদ্যোগ নিলেন তাঁরা।

রাজস্থান পুলিশের তরফে রাজ্যের সব শহরের পুলিশ ও মিউনিসিপ্যালিটিগুলিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, তারা যেন নিজেরা উদ্যোগ নিয়ে শহরের বিভিন্ন জায়গায় খাবার রেখে দিয়ে আসে। যাতে পশু-পাখিরা সেখান থেকে খাবার পেতে পারে। এই ব্যাপারে এগিয়ে এসেছে অনেক এনজিও। তারাও পুলিশকে এই কাজে সাহায্য করছে।

জয়পুর মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের অনুরোধে বিভিন্ন এনজিও প্রতিদিন ১৫ হাজার চাপাটি বানিয়ে তা পশু-পাখিদের খাবার জন্য রেখে আসছে। মিউনিসিপ্যাল কমিশনার বিজয় পাল সিং জানিয়েছেন, “পশু-পাখিদের এভাবে অভুক্ত দেখে খুব খারাপ লাগছে। ওদের তো নিজে থেকে খাবার তৈরি করার ক্ষমতা নেই। তাও যারা ঘাস-পাতা খেতে পারে তাদের সমস্যা কিছুটা কম। কিন্তু কুকুর-বেড়ালদের সমস্যা সবথেকে বেশি। তাই আমরা এই পদক্ষেপ নিয়েছি।”

এই ছবিটা রাজস্থানের সব জায়গাতেই দেখা যাচ্ছে। পশুদের জন্য চাপাটি বানিয়ে তা বিভিন্ন জায়গায় খাওয়ানো হচ্ছে। পুলিশকর্মীরাই গিয়ে নিজে হাতে গরু-কুকুরদের খাওয়াচ্ছেন। অন্যদিকে আবার পাখিদের জন্য গমের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। শহরের যেখানে যেখানে পাখিরা ঝাঁকে ঝাঁকে আসে সেখানে গিয়ে এই গম ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। পায়রা, কাক ও অন্যান্য পাখিরা এসে তা খাচ্ছে। রাজস্থান পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, যতদিন লকডাউন চলবে এভাবেই পশু-পাখিদের খাওয়াবেন তাঁরা।

You might also like