Latest News

পাঞ্জাবে মোদীর মুখে সেই ‘নিরাপত্তা’, মন্দিরে যেতে না পেরে গুসসা প্রধানমন্ত্রীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পাঞ্জাবে ভোটের প্রচারে গিয়ে ফের নিজের নিরাপত্তার কথা তুললেন প্রধামন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী। জলন্ধরের সভায় আজ প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই সভা শেষে ত্রিপুরমালিনী শক্তিপীঠে যাওয়ার ইচ্ছে ছিল। কিন্তু পুলিশ বলেছে তারা নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে পারবে না। এই তো রাজ্যটির অবস্থা।

গত মাসের ৫ তারিখ প্রধানমন্ত্রী পাঞ্জাবে গিয়েছিলেন। তিন বিতর্কিত কৃষি বিল বাতিলের পর সেটাই ছিল তাঁর প্রথম পাঞ্জাব সফর। ফিরোজপুরে তাঁর জনসভা করার কথা ছিল। কিন্তু সড়ক পথে যাওয়ার সময় তাঁকে কৃষকদের অবরোধের মুখে ফিরে আসতে হয়। স্থানীয় বিমানবন্দরে ফিরে এসে তিনি নিজের নিরাপত্তা নিয়ে ক্ষোভ উগরে দেন। পাঞ্জাব সরকারের অফিসারদের বলেন, আপনাদের মুখ্যমন্ত্রীকে বলবেন, আমি বেঁচে ফিরেছি।

সেদিন একটি উড়ালপুলের উপর প্রধানমন্ত্রীর কনভয় থামিয়ে দিতে হয়। বেশ কিছুক্ষণ সেখানে আটকে থাকে তাঁর কনভয়। এতেই তাঁর নিরাপত্তা বিঘ্নিত হতে পারত বলে পরে প্রধানমন্ত্রীর অফিস থেকে অভিযোগ করা হয়। আবার প্রধানমন্ত্রীর ‘প্রাণ নিয়ে ফিরেছি,’ মন্তব্য নিয়েও প্রশ্ন তোলেন অনেকেই। পাঞ্জাবের মানুষকে প্রধানমন্ত্রী অপমান করেছেন বলে অভিযোগ তোলে কংগ্রেস। ওই ঘটনা নিয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। গত সপ্তাহে এক সাক্ষাৎকারে এই প্রসঙ্গ উঠলে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমার এখন মন্তব্য করা ঠিক নয়। কারণ তদন্ত এখনও শেষ হয়নি।

এদিন জলান্ধরের সভায় সেই নিরাপত্তার প্রসঙ্গই প্রধানমন্ত্রী তুলেছেন অন্য ভাবে। সেখানকার পরিচিত মন্দির ত্রিপুর মালিনী শক্তিপীঠে যেতে চেয়েছিলেন। কিন্তু নিরাপত্তার প্রশ্ন তুলেই সায় দেয়নি পুলিশ। মোদী এই সিদ্ধান্তকেও পাঞ্জাবের আইনশৃঙ্খলার সঙ্গে এক করে দেখাতে চেয়েছেন। ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, এই তো অবস্থা। ওয়াকিবহাল মহল মনে করছে প্রধানমন্ত্রী দেখাতে চাইছেন, কংগ্রেস শাসিত পাঞ্জাবে আইনশৃঙ্খলা এতটাই খারাপ যে প্রধামন্ত্রীর নিরাপত্তা নিয়েও পুলিশকে পাঁচবার ভাবতে হয়।

তবে প্রধানমন্ত্রীর অফিস থেকে কবে এই কর্মসূচির কথা পাঞ্জাব পুলিশকে জানানো হয়েছিল তা জানা যায়নি। যেমন পুলিশ ঠিক কী কারণে প্রধামন্ত্রীর মন্দির সফরে নিরাপত্তা নিয়ে দায় নিতে চায়নি তা জানা যায়নি। প্রধানমন্ত্রী ভাষণেই বলেন, কয়েকদিনের মধ্যেই আমি ওই মন্দিরে যাব।

You might also like