Latest News

মদের দোকান খুলতেই বাজি ফাটিয়ে সেলিব্রেশন কর্নাটকে, রইল ভিডিও

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নির্দেশিকায় অবশ্য বলা হয়েছে, দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত খোলা থাকবে মদের দোকান। দোকানের বাইরে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে অন্তত ২ মিটার দূরত্ব বজায় রাখতে হবে ক্রেতাদের। সেইসঙ্গে একসঙ্গে পাঁচজনের বেশি দাঁড়াতে পারবেন না লাইনে। প্রশাসনের সঙ্গে দোকানগুলিকেও বলা হয়েছে, এই নির্দেশিকা পালন হচ্ছে কিনা সেদিকে খেয়াল রাখতে।

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সোমবার থেকেই ভারতে তৃতীয় পর্যায়ের লকডাউন শুরু হয়েছে। কিন্তু একাধিক ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। তার মধ্যে রয়েছে মদের দোকানও। আর মদের দোকান খুলতেই দেখা গেল সামাজিক দূরত্বের তোয়াক্কা না করে জড়ো হয়েছেন একাধিক মানুষ। গোটা দেশেই দেখা গিয়েছে এই ছবিটা। কর্নাটকে তো রীতিমতো বাজি ফাটিয়ে সেলিব্রেশন করতে দেখা গিয়েছে ক্রেতাদের।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নির্দেশ অনুযায়ী, কন্টেইনমেন্ট জোনের বাইরে রেড, অরেঞ্জ ও গ্রিন জোনে সোমবার থেকে মদের দোকান খোলা হয়েছে। তবে কোনও শপিং কমপ্লেক্স নয়, শুধুমাত্র এককভাবে থাকা দোকানগুলোই খোলা হয়েছে। আর সেটা খুলতেই দেশজুড়ে দেখা গেল এক অদ্ভুত দৃশ্য।

সকাল থেকেই মদের দোকানের বাইরে লাইন পড়েছিল। বেলা ১২টায় দোকান খোলার সঙ্গে সঙ্গেই বাড়তে থাকে ভিড়। পরিস্থিতি সামলাতে হিমশিম খেতে হয় পুলিশকে। দিল্লির একাধিক জায়গায় তো পুলিশের সঙ্গে গণ্ডগোলেও জড়ান সাধারণ মানুষ। বাধ্য হয়ে একাধিক জায়গায় মদের দোকান বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয় প্রশাসন।

আরও পড়ুন মাস্ক না পরলে মদ মিলবে না, কাউকে দু’বোতলের বেশি নয়, ১৫ দফা নির্দেশ আবগারি দফতরের

কর্নাটকে ছবিটা আরও খানিকটা আলাদা। এখানে বিভিন্ন জেলায় দেখা গিয়েছে, দোকান খোলার আগেই লাইন পড়েছে। এমনকি দোকানের বাইরে রীতিমতো বাজি ফাটিয়ে সেলিব্রেশন চলছে। কর্নাটকের কোলারে একটা দোকানের সামনে দেখা যায়, হাতে বাজির প্যাকেট নিয়ে হাজির হয়েছেন অনেকে। তাঁদের বক্তব্য, মদের দোকান এতদিন পরে খোলায় আনন্দ ধরে রাখতে পারছেন না তাঁরা। তাই বাজি ফাটিয়ে সেলিব্রেশন করছেন।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নির্দেশিকায় অবশ্য বলা হয়েছে, দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত খোলা থাকবে মদের দোকান। দোকানের বাইরে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে অন্তত ২ মিটার দূরত্ব বজায় রাখতে হবে ক্রেতাদের। সেইসঙ্গে একসঙ্গে পাঁচজনের বেশি দাঁড়াতে পারবেন না লাইনে। প্রশাসনের সঙ্গে দোকানগুলিকেও বলা হয়েছে, এই নির্দেশিকা পালন হচ্ছে কিনা সেদিকে খেয়াল রাখতে।

এক মাসের উপর বন্ধ থাকার পরে মদের দোকান খুলতেই অবশ্য কোনও শর্ত মানলেন না ক্রেতারা। কেউ মানলেন না সামাজিক দূরত্ব। সব দোকানের বাইরে পড়ল লম্বা লাইন। আর তার মধ্যেই কর্নাটকে বাজি ফাটিয়ে হল সেলিব্রেশন।

You might also like