Latest News

উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে জারি সংঘর্ষ, ফের পরীক্ষা পিছলো সিবিএসই বোর্ড

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গত চারদিন ধরে অশান্তির আগুনে জ্বলছে উত্তর-পূর্ব দিল্লি। সময় যত এগোচ্ছে ক্রমশই বাড়ছে হিংসার আঁচ। ৭২ ঘণ্টা কেটে গেলেও রাজধানী শহরের অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতির একটুও উন্নতি হয়নি। বরং বেশ কিছু জায়গা নতুন করে রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছে। এ হেন পরিস্থিতিতে আগামী ২৮ এবং ২৯ ফেব্রুয়ারি সিবিএসই বোর্ডের দশম এবং দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা পিছনোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেন্ট্রাল বোর্ড অফ সেকেন্ডারি এডুকেশন।

উত্তর-পূর্ব দিল্লির যে সমস্ত এলাকায় ক্রমাগত হিংসার পরিমাণ বাড়ছে সেইসব এলাকায় পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার নোটিস দিয়ে তেমনটাই জানিয়েছে সিবিএসই বোর্ড। আজ অর্থাৎ বৃহস্পতিবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ছিল দ্বাদশ শ্রেণির ইংরেজি পরীক্ষা। উত্তর-পূর্ব দিল্লির ৭৩টি পরীক্ষাকেন্দ্র এবং পূর্ব দিল্লির ৭টি সেন্টারে এই পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। প্রসঙ্গত, এর আগে ২৬ তারিখের পরীক্ষাও পিছিয়ে দিয়েছিল সিবিএসই বোর্ড।

তবে রাজধানী শহরের বাকি অংশে রুটিনমাফিক পরীক্ষা হবে। আর যাদের পরীক্ষা পিছিয়ে গিয়েছে তাদের খুব তাড়াতাড়ি নতুন তারিখ জানানো হবে বলেও জানিয়েছে বোর্ড। ইতিমধ্যেই দিল্লি হাই কোর্ট জানিয়েছে, যেসব এলাকায় পড়ুয়াদের পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে তাদের যেন নতুন ভাবে পরীক্ষা নেওয়ার ১০ থেকে ১৫ দিন আগে পরিবর্তিত তারিখ জানানো হয়।

গত ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে সিবিএসই বোর্ডের পরীক্ষা শুরু হয়েছিল। তবে পরীক্ষা চলাকালীন গত রবিবার থেকেই অশান্ত হয়ে উঠেছে উত্তর-পূর্ব দিল্লি। সিএএ বিরোধী এবং সমর্থকদের লাগাতার সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়েছে মৌজপুরা, জাফরাবাদ, গোকুলপুরী, ভজনপুরা, চাঁদবাগ চক-সহ একাধিক এলাকা। দোকানপাট, গাড়ি, স্কুল, পেট্রোল পাম্প জ্বালিয়ে দিয়েছে তাণ্ডবকারীরা। নাগাড়ে ইট এবং পাথরবৃষ্টি হয়েছে এইসব এলাকায়। চলেছে গুলিও। দিল্লিতে এখনও পর্যন্ত হিংসার বলি হয়েছেন ৩৪ জন। আহত ২০০-র বেশি। অশান্তি রুখতে পুলিশের সঙ্গে রাস্তায় নেমেছে আধাসেনা। উত্তর-পূর্ব দিল্লির একাধিক এলাকায় জারি রয়েছে কার্ফু। পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে সেনা নামানোর দাবি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

You might also like