Latest News

দিদিকে বলতে রাস্তায় সল্টলেকবাসী, মেয়র বললেন, ‘কালকেই দেখছি’

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আদালতে চলছে মামলা। অভিযোগ, ফয়সালা হওয়ার আগেই বহুতল নির্মাণ শুরু হয়ে গিয়েছে সল্টলেকের ডিবি ব্লকে। বাসিন্দাদের এও অভিযোগ, সব মহলে জানিয়েও কোনও কাজ হচ্ছে না। তাই বুধবার সন্ধেবেলা সিটি সেন্টার-১ লাগোয়া এলাকায় মোমবাতি হাতে নীরব মিছিলে সামিল হলেন ডিবি ব্লকের বাসিন্দারা। হাতে ব্যানার, ‘দিদিকে বলছি।’ নাগরিকদের মিছিলের কথা শুনে বিধাননগর কর্পোরেশনের মেয়র কৃষ্ণা চক্রবর্তী বললেন, “আমি তো সবে এসেছি। জানতাম না। কাল সকালে প্রথমে এই ফাইলটা নিয়েই আমি আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলব।”

কী অভিযোগ?

মিছিলে পা মেলানো নাগরিকদের বক্তব্য, ডিবি-১১৮ নম্বর প্লটে একটি বহুতল নির্মাণ হচ্ছে। তাঁরা আদালতে মামলা করেছিলেন। সেই মামলা এখনও ঝুলে রয়েছে। কিন্তু প্রশাসনকে ব্যবহার করে এখানে নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। ডিবি ব্লকের বাসিন্দাদের সংগঠনের অন্যতম বুদ্ধদেব বসু বলেন, “এমন সব মেশিন দিয়ে কাজ চলছে যে, বাড়ির দেওয়ালে ফাটল ধরা পড়ছে।” তিনি আরও বলেন, “এক্ষুণি যদি এই কাজ না বন্ধ করা যায়, তাহলে এটা আরএকটা বউ বাজার হবে।” উল্লেখ্য, ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর কাজ চলাকালীন সুড়ঙ্গে মেশিন চালানোয় বিপর্যয় নেমেছিল বউ বাজারে।

২০ কাঠা জমি টিনের পাত দিয়ে ঘিরে ফেলা হয় পুজোর পরই। বাসিন্দাদের বক্তব্য, এই জমিটি আগে ছিল স্কুল শিক্ষা দফতরের। তারপর তা হস্তান্তর করা হয় মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদকে। মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ নাকি আবার ওই জমি দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ডকে। তারাই এখন নির্মাণ কাজ শুরু করেছে।

কৃষ্ণাদেবীর সঙ্গে দ্য ওয়াল-এর তরফে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, “আমি জানতাম না। আমি মেয়র হওয়ার পর এই ধরনের সমস্যার কথা নিয়ে কেউ কখনও আসেননি। যখন জানলাম, কাল (বৃহস্পতিবার) সকালেই এটা দেখব।” নাগরিকদের বক্তব্য, হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে তাঁরা মামলা করেছেন। তাঁদের বক্তব্য, আবাসিক এলাকায় জমির চরিত্র পাল্টে দেওয়া হচ্ছে। তাঁদের আরও বক্তব্য, যে ভাবে জমি হস্তান্তর হয়েছে তা বেআইনি। প্রতিবাদ করতে গেলে পুলিশ হুমকি দিচ্ছে বলেও অভিযোগ স্থানীয়দের।

বিধাননগরের মেয়র বলেন, “যদি ওখানকার নাগরিকরা চান, আমার সঙ্গে দেখা করতে পারেন। সবটা দেখে নিয়ে, ওঁদের বক্তব্য শুনে যা করার করব। কিন্তু সবার প্রথমে গোটা ব্যাপারটা কী হয়েছে তা আমায় ভাল করে দেখতে হবে।”

You might also like