Latest News

মর্মান্তিক! আমেরিকা-কানাডা সীমান্তে ঠান্ডায় জমে মৃত্যু এক শিশু সহ চার ভারতীয়ের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মর্মান্তিক ঘটনা আমেরিকা-কানাডার সীমান্ত। বরফে ঢাকা সীমান্ত এলাকা থেকে উদ্ধার হল চার ভারতীয়ের মৃতদেহ। পুলিশ জানাচ্ছে, একই পরিবারের চার সদস্যের দেহ পড়েছিল বরফের ওপরে। মৃতদের মধ্যে একটি শিশুও রয়েছে। হাড়হিম ঠান্ডায় জমেই  তাদের হয়েছে বলে জানাচ্ছে পুলিশ।

মার্কিন সীমান্তে এমন ভয়াবহ ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন। ম্যানিটোবা রয়্যাল কানাডিয়ান মাউন্টেন পুলিশ (আরসিএমপি) জানিয়েছে, কোনও পাচারকারী খপ্পরে পড়েছিল ওই পরিবার। তাদের অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার সময় সীমান্ত এলাকাতেই ছেড়ে দিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। সেখান থেকে আর ফিরতে পারেননি অসহায় মানুষগুলো। প্রচণ্ড ঠান্ডায় জমেই মৃত্যু হয় তাদের।

মার্কিন পুলিশ জানাচ্ছে, মৃতরা সকলেই ভারতীয়। অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার জেন ম্যাকল্যাচি বলছেন, স্টিভ শ্যান্ড নামে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এই স্টিভ ফ্লোরিডার বাসিন্দা। সম্ভবত পাচারকারী দলের সঙ্গে এর যোগসূত্র রয়েছে। স্টিভকে জেরা করে জানা গেছে, মৃতদের কোনও বৈধ নথিপত্র ছিল না। সীমান্ত পার করিয়ে তাদের পাচার করা হচ্ছিল। ওই দলে আরও পাঁচজন ভারতীয় ছিল। তাদের উদ্ধার করা হয়েছে।

ওই পরিবারের চারজন কোনওভাবে দলছুট হয়ে পড়ে। প্রচণ্ড ঠান্ডায় অন্ধকার পথ পার হতে গিয়ে তাদের মর্মান্তিক পরিণতি হয়। প্রায় ৪০ ফুট উঁচু পাহাড়ি এলাকায় বরফের মধ্যে পড়েছিল চারজনের দেহ। ওই এলাকার তাপমাত্রা হিমাঙ্কের ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস নীচে।

পুলিশ জানাচ্ছে, একটি ভ্যানে করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল ভারতীয়দের। ওই ভ্যান থেকে খাবারের ব্যাগ, জলের বোতল, প্লাস্টিকের কাপ, জুসের প্যাকেট  ও স্ন্যাকস পাওয়া গেছে। পুলিশের অনুমান, ভ্যানে করে নিয়ে গিয়ে হেঁটে সীমান্ত পার করানোর উদ্দেশ্য ছিল পাচারকারীদের। তবে তার আগেই চারজন দলছুট হয়ে অন্য পথে চলে যায়। প্রায় ১১ ঘণ্টা হাঁটানো হয়েছিল তাদের।

এই ঘটনার পরে দুই দেশের রাষ্ট্রদূতদের সঙ্গে বিদেশ মন্ত্রকের তরফে যোগাযোগ করা হচ্ছে বলে জানা গেছে। বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলেছেন, খুবই দুঃখজনক ঘটনা। আমেরিকা ও কানাডার রাষ্ট্রদূতদের সঙ্গে কথা বলা হচ্ছে। কীভাবে এমন ঘটল তার তদন্ত হবে।

You might also like