Latest News

বিদেশ ভ্রমণ ছাড়াই ওমিক্রন আক্রান্ত ১৪১, গোষ্ঠী সংক্রমণের আশঙ্কা মুম্বইতে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বাধভাঙ্গা সংক্রমণ মহারাষ্ট্রে। বাড়ছে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যাও। গত ২৪ ঘণ্টায় মহারাষ্ট্রে কোভিড আক্রান্ত দুশোর বেশি। চিন্তা বাড়িয়ে দিয়েছে বৃহন্মুম্বই পুরসভার (বিএমসি) তথ্য। বিএমসি জানিয়েছে, বিদেশ ভ্রমণের রেকর্ড ছাড়াই ১৪১ জন ওমিক্রন আক্রান্ত বাণিজ্যনগরীতে।

মঙ্গলবার একদিনে কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা ৩০০ ছাড়িয়েছিল। বৃহস্পতিবার একলাফে বেড়ে ৫০০ ছাড়িয়ে যায়। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের তথ্য বলছে, গতকালের থেকে সংক্রমণের হার আজ ৩৭ শতাংশ বেশি। করোনা আক্রান্তের সংখ্যাও এক ধাক্কায় প্রায় সাড়ে ৫ হাজার বৃদ্ধি পেয়েছে।

মুম্বইতে এখন ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা তিনশোর কাছাকাছি। তার মধ্যে ১৪১ জনের বিদেশ ভ্রমণের ইতিহাস নেই। স্বাস্থ্য আধিকারিকদের আশঙ্কা, গোষ্ঠী সংক্রমণ ছড়াচ্ছে বাণিজ্যনগরীতে। স্থানীয়ভাবে কনটেইনমেন্ট ও মাইক্রোকনটেইনমেন্ট জ়োন বাড়ানোর ভাবনাচিন্তা করা হচ্ছে।

কিছুদিন আগেই খবর মিলেছিল নিউ ইয়র্ক ফেরত মুম্বইয়ের এক যুবকের শরীরে ওমিক্রনের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। ওই যুবক ফাইজার ভ্যাকসিনের তিনটি ডোজ নেওয়ার পরেও সংক্রমিত হন। নভেম্বরের গোড়ায় নিউ ইয়র্ক থেকে মুম্বই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছেছিলেন তিনি। তাঁর শরীরে করোনাভাইরাস সংক্রমণের কোনও উপসর্গ ছিল না। বিমানবন্দরে নিয়ম মাফিক পরীক্ষায় জানা যায় তিনি কোভিড পজিটিভ। পরে তাঁর নমুনার জিনোম সিকুয়েন্স করে ওমিক্রন ভ্যারিয়ান্টের খোঁজ মেলে। ওই যুবকের থেকে আরও অনেকের মধ্যে সংক্রমণ ছড়িয়েছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

১ ডিসেম্বর পর্যন্ত মুম্বই, পুণে এবং নাগপুর বিমানবন্দর দিয়ে ৬১ হাজার ৪৩৯ জন বিদেশ থেকে মহারাষ্ট্রে ঢুকেছেন। তাঁদের মধ্যে ৯ হাজার ৬৭৮ জন ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ দেশ থেকে এসেছেন বলে জানিয়েছেন বৃহন্মুম্বই পুরসভা। ওমিক্রন আতঙ্কে মুম্বইয়ে বড় জমায়েতে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তথ্য বলছে, ওমিক্রন পজিটিভ রোগীদের ৭০ শতাংশের শরীরেই কোনও উপসর্গ নেই। নিঃশব্দ ঘাতকের মতো হানা দিচ্ছে সংক্রমণ। তার থেকেও চিন্তার বিষয়ে, যতজন আক্রান্তের খোঁজ মিলেছে তাদের ৯০ শতাংশেরই ভ্যাকসিনের দুটি করে ডোজ নেওয়া আছে। মাত্র ৩০ শতাংশের মধ্যে দেখা যাচ্ছে সংক্রমণের লক্ষণ, বাকিরা অ্যাসিম্পটোমেটিক বা উপসর্গহীন। বিদেশ ফেরত যাত্রীদের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়লেও, স্থানীয়দের মধ্যেও ছড়াচ্ছে সংক্রমণ। সেক্ষেত্রে গোষ্ঠী সংক্রমণ হতে পারে কিনা সে নিয়েও চিন্তা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

You might also like