Latest News

মুখ্যমন্ত্রী প্রার্থী কে পাঞ্জাবে? হাইকমান্ড নীরব, সরব দুই দাবিদার চান্নি, সিধু

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ২০১৭-র বিধানসভা ভোটে পাঞ্জাবে কংগ্রেসের মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী ছিলেন ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং। দলকে ক্ষমতায় এনেছিলেন এই প্রাক্তন সেনা কর্তা। অমরিন্দর এখন কংগ্রেস ছেড়ে নিজের দল গড়ে বিজেপি সঙ্গী। পাঞ্জাবে তাহলে এবার মুখ্যমন্ত্রী প্রার্থী কে?

রা কাড়ছে না কংগ্রেস হাইকমান্ড। বুঝিয়ে দিয়েছে, চরণজিৎ সিং চান্নিকে ভোটের মুখে মুখ্যমন্ত্রী করা হলেও বিধানসভা ভোটে নেতৃত্বের ভার তাঁকে দিচ্ছে না দল। তাহলে আর কেউ কি মুখ্যমন্ত্রী প্রার্থী হতে পারেন কংগ্রেসের? প্রদেশ কংগ্রেসের নতুন সভাপতি নবজ্যোত সিং সিধুর বাসনা কারও অজানা নয়। কিন্তু তাঁর নামেও এখনও পর্যন্ত শিলমোহর দেয়নি হাইকমান্ড।

এই পরিস্থিতিতে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে জেরবার পাঞ্জাব কংগ্রেসে নতুন বিরোধের সূ্ত্রপাত হয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মুখ নিয়ে। অনেকেই মনে করেছিলেন বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী দলিত শিখ চান্নিকেই মুখ করে ভোট লড়বে দল। কিন্তু সেই সম্ভাবনা ক্রমশ নির্মূল হওয়ায় মুখ খুলেছেন চান্নি। পাঞ্জাবের একটি টিভি চ্যানেলকে ঘুরিয়ে বলেছেন, তাঁর যোগ্যতা কম কীসে!

চান্নির প্রথম দাবি, মুখ্যমন্ত্রীর মুখ ঘোষণা করতেই হবে। তা না হলে পরাজয় অবশ্যম্ভাবী। ২০১৭-র মতো যতবার দল মুখ্যমন্ত্রী প্রার্থী ঘোষণা করে লড়াই করেছে ততবারই ক্ষমতায় এসেছে। এবারও তা করতে হবে। না হলে ভোটের আগেই হার মেনে নেওয়া হবে। চান্নিকে প্রশ্ন করা হয়, আপনি কি মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হতে চান? মুখ্যমন্ত্রীর জবাব, সেটা দল ঠিক করবে। তবে এটা তো বলাই যায়, আমার জনপ্রিয়তা আছে। মানুষ আমাকে দেখলে হাত নাড়ে। আমাকে ছুঁতে চায়।

চান্নির কথা জানাজানি হতেই মুখ খোলেন সিধু। তিনি বলেন, অবশ্যই মুখ্যমন্ত্রী প্রার্থী ঘোষণা করা দরকার। আর তা হাইকমান্ড নয়, ঠিক করবেন পাঞ্জাবের জনগণ। সিধু কি তাহলে হাইকমান্ডকে বাদ রেখে নিজেকে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসাবে ঘোষণা করতে চাইছেন?

সিধু শিবিরের ব্যাখ্যা, এটা ঠিক হাইকমান্ডের প্রতি বিদ্রোহ নয়। তবে চাপ সৃষ্টি অবশ্যই। সিধু চাইছেন, বিধায়ক দল এবং প্রদেশ কংগ্রেস কমিটির মতামত নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী ঠিক করা হোক। তাহলেই তিনি নিজের নামে শিলমোহর আদায় করে নিতে পারবেন।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকাসুখপাঠ

You might also like