Latest News

Netaji Subhaschandra Bose: নেতাজিকে ‘জাঙ্ক’ বললেন আমলা, মোদীকে কড়া চিঠি দিয়ে শাস্তি দাবি করলেন প্রপৌত্রী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নেতাজিকে (Netaji Subhaschandra Bose) নিয়ে দেশবাসীর আবেগকে কাজে লাগিয়ে ভোটব্যাঙ্কের রাজনীতি কমবেশি বহু দলই করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে নানা সময়ে। এ রাজ্যেও শেষ নির্বাচনের আগে তাঁকে সামনে রেখে ভোট প্রচার করেছিল বিজেপি। তাঁর নাম করে, তাঁকে সম্মান ও শ্রদ্ধা প্রদর্শনের নানা উদ্যোগ নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন নেতারা। এখন ভোট মিটে গেছে, বিজেপিও হেরে গেছে। তাই বিজেপি প্রশাসনের কাছে নেতাজি সংক্রান্ত সমস্ত ইস্যুই এখন ‘জাঙ্ক’ বা আবর্জনার বিষয়– এমনই অভিযোগ তুলে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখলেন সুভাষচন্দ্রের প্রপৌত্রী রাজ্যশ্রী চৌধুরী।

ঠিক কী ঘটেছে (Netaji Subhaschandra Bose)?

দিল্লির ঐতিহাসিক তিনমূর্তি ভবন প্রাঙ্গণে ২৭১ কোটি টাকা খরচ করে গড়ে উঠেছে ‘প্রধানমন্ত্রী সংগ্রহালয়’। সংগ্রহালয়ের দায়িত্বে রয়েছে নেহরু মেমোরিয়াল মিউজিয়াম অ্যান্ড লাইব্রেরি। ওই সংগ্রহালয়ে নেতাজি সুভাষচন্দ্রের (Netaji Subhaschandra Bose) ছবি, ভিডিও, অডিও রাখা হোক বলে অনুরোধ করে প্রধানমন্ত্রীর দফতরে চিঠি দিয়েছিলেন রাজ্যশ্রী চৌধুরী। এই চিঠির উত্তর দিতে গিয়ে সংস্কৃতি মন্ত্রকের ডেপুটি ডিরেক্টর রবি কে মিশ্র জানান, নেতাজি সংক্রান্ত এই সব বিষয় নাকি ‘জাঙ্ক’ অর্থাৎ ছাড়া কিছু নয়। পাশাপাশি এই ধরনের ‘জাঙ্ক’ বিষয় জবাব দেওয়ার উপযুক্ত নয় বলেও জানিয়ে দেন তিনি।

রাজ্যশ্রী চৌধুরীর দাবি, এই উত্তর গ্রহণযোগ্য নয়। স্বাধীনতা সংগ্রামী নেতাজি (Netaji Subhaschandra Bose) সংক্রান্ত কোনও প্রশ্নের উত্তর দেওয়ারও প্রয়োজন বোধ করছে না কেন্দ্রের প্রশাসন। তিনি এ ব্যাপারে রীতিমতো হেস্তনেস্ত চান। তাই প্রধানমন্ত্রীকে ফের চিঠি লিখে হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেছেন, সাতদিনের মধ্যে ওই আধিকারিককে সাসপেন্ড ও গ্রেফতার করতে হবে, নয়তো আদালতে যাবেন তিনি।

২০১৮ সালে আইএনএ-র ৭৫তম বর্ষ উপলক্ষে নেতাজি সুভাষচন্দ্রের অবদানকে মান্যতা দেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই বছরই মোদী ২১ অক্টোবর আইএনএ দিবসে লালকেল্লায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। নেতাজিকে অখণ্ড ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রীর স্বীকৃতিও দেন তিনি কারণ ১৯৪৩ সালে সিঙ্গাপুরে আজাদ হিন্দ সরকার তথা অখণ্ড ভারতের রাষ্ট্রপ্রধান পদে নিজেকে ঘোষণা করেছিলেন আইএনএ প্রধান সুভাষচন্দ্র বসু। সেই সময় তাঁকে অভিনন্দন জানায় সারা বিশ্ব।

এই ঘটনার কথা মনে করিয়ে দিয়েই প্রধানমন্ত্রীর মিউজিয়ামে নেতাজির (Netaji Subhaschandra Bose) স্বীকৃতি চেয়েছিলেন রাজ্যশ্রীদেবী। ভারতের স্বাধীনতার ইতিহাসে নেতাজির ভূমিকাকে আরও স্মরণীয় করে রাখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তা তো হলই না, উল্টে নেতাজি-সংক্রান্ত বিষয় নাকি ‘জাঙ্ক’, এমনটাই শুনতে হল রাজ্যশ্রীকে। তাই প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখে আদালতে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি।

পর্বতারোহণে তুষার-অন্ধত্বের শিকার শেরপারা! ১৩ জনের চোখের চিকিৎসা করলেন বাঙালি চিকিৎসক

You might also like