Latest News

একদিন আগে কোভিড নেগেটিভ রিপোর্ট থাকলে তবেই আমেরিকায় আসার অনুমতি, কড়া হচ্ছে নিয়মকানুন

দ্য ওয়াল ব্যুরো : শীতকালে যাতে কোভিড অতিমহামারী আরও বেশি ছড়িয়ে না পড়ে, সেজন্য সতর্ক হচ্ছে আমেরিকা (America)। বৃহস্পতিবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব হেলথ রিসার্চ সেন্টারে কোভিড প্রতিরোধ নিয়ে ভাষণ দেন। তিনি বলেন, দ্রুত আরও বেশি মানুষকে ভ্যাকসিন দিতে হবে। সেই সঙ্গে বিদেশ থেকে যাঁরা আমেরিকায় আসছেন, তাঁদের জন্য কড়া হবে বিধিনিষেধ।

গত বুধবার আমেরিকায় প্রথম কোভিডের ওমিক্রন ভ্যারিয়ান্ট ধরা পড়ে। এই প্রেক্ষিতে বাইডেন বলেন, আগামী সপ্তাহ থেকে বিদেশিদের ব্যাপারে আরও কড়াকড়ি করা হবে। আমেরিকায় আসার একদিন আগেই প্রত্যেক বিমানযাত্রীকে করাতে হবে কোভিড টেস্ট। যদি রিপোর্ট নেগেটিভ হয়, তবেই তাঁরা আমেরিকায় আসতে পারবেন। বিদেশিদের ক্ষেত্রে তো বটেই, এমনকি যে মার্কিন নাগরিকরা বিদেশ থেকে আসবেন, তাঁদের ক্ষেত্রেও এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে। কেউ ভ্যাকসিনের দু’টি ডোজ নিলেও তাঁকে কোভিড টেস্ট করাতে হবে।

এর পাশাপাশি বাইডেন ঘোষণা করেছেন, আগামী মার্চের মাঝামাঝি অবধি বিমানে, ট্রেনে ও অন্যান্য গণ পরিবহণে বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরতে হবে।

বিজ্ঞানীদের ধারণা, কোভিডের অন্যান্য ভ্যারিয়ান্টের তুলনায় ওমিক্রন সম্ভবত বেশি ছোঁয়াচে।দক্ষিণ আফ্রিকায় কয়েক সপ্তাহ আগে প্রথমবার ওমিক্রন ভ্যারিয়ান্টের সন্ধান পাওয়া যায়। বৃহস্পতিবার জানা যায়, গত মঙ্গল ও বুধবারের মধ্যে সেদেশে আক্রান্তের সংখ্যা হয়েছে দ্বিগুণ। দক্ষিণ আফ্রিকায় বর্তমানে যতজন কোভিড রোগী রয়েছেন, তাঁদের বেশিরভাগই ওমিক্রন ভ্যারিয়ান্টে আক্রান্ত।

হু-র মুখপাত্র মারিয়া ভন কেরখোভে বলেন, ওমিক্রন কতদূর ছোঁয়াচে, জানা যাবে কয়েকদিনের মধ্যেই। তাঁর মতে, আমাদের সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত থাকা উচিত। হু-র মতে, ভ্যাকসিনের দু’টি ডোজ নেওয়ার পরে যদি বুস্টার ডোজ নেওয়া হয়, তাহলে শরীরে ওমিক্রনের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে উঠতে পারে। ব্রিটেন ও আমেরিকা ইতিমধ্যে বুস্টার ডোজ দেওয়া শুরু করেছে। এই পরিস্থিতিতে দেখাক দিয়েছে বিতর্ক। অনেকে বলছেন, ধনী দেশগুলি যখন বুস্টার ডোজ দিচ্ছে, বহু উন্নয়নশীল দেশের মানুষ তখন একটি ডোজও পাননি।

বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ব্রিটেনে ২২ জন ওমিক্রন আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। গত কয়েকদিনে যে দেশগুলিতে ওমিক্রন আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে, তাদের মধ্যে আছে ঘানা, নাইজেরিয়া, নরওয়ে, সৌদি আরব এবং দক্ষিণ কোরিয়া। এদিন ভারতেও দু’জন ওমিক্রন আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। এখনও পর্যন্ত মোট ২৯ টি দেশে ৩৭৩ জনের শরীরে ওমিক্রন ভ্যারিয়ান্টের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। ভারত সরকার পরিস্থিতির ওপরে নজর রাখছে।

You might also like