Latest News

তিনমাস চিড়িয়াখানায় থেকে সিংহ দেখেছিলেন শিল্পী, তবেই তৈরি হয়েছিল জাতীয় প্রতীকের নকশা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: জাতীয় প্রতীকের (National Emblem) নতুন রূপ নিয়ে বিতর্ক ছড়িয়ে পরেছে চারিদিকে। অনেকেই মনে করছেন, মোদীর (Modi) ভাবনায় তৈরি নতুন জাতীয় প্রতীকের সিংহগুলি অনেক বেশি হিংস্র। পুরনো জাতীয় প্রতীকের সিংহগুলি (Lion) যেন হাসছে, এমনও মন্তব্য করেছেন অনেকে।

পুরনো এই জাতীয় প্রতীকটির নকশা তৈরির পিছনে প্রধান যাঁর মাথা কাজ করেছিল তিনি হলেন দীননাথ ভার্গব। বুধবার তাঁর স্ত্রী জানিয়েছেন, এই জাতীয় প্রতীকের সিংহ তৈরির জন্য তিনি টানা তিন মাস কলকাতার চিড়িয়াখানায় জেতেন, কাছ থেকে সিংহ পর্যবেক্ষণ করতেন তিনি। প্রয়াত দীননাথ সহ আরও অনেকেই ছিলেন সাবেকী জাতীয় প্রতীক তৈরির নকশাতে। উত্তরপ্রদেশের ‘লায়ন ক্যাপিটাল অফ অশোক’- এর সিংহের আদলে তৈরি হয়েছিল এই অশোক স্তম্ভ।

ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহেরু ভারতের সংবিধানের পাণ্ডুলিপি নকশা করতে দায়িত্ব দিয়েছিলেন রবীন্দ্রনাথের শান্তিনিকেতনের কলাভবনের অধ্যক্ষ, বিখ্যাত চিত্রশিল্পী নন্দলাল বসুকে। নন্দলাল বসু অশোক স্তম্ভ তৈরির দায়িত্ব দেন কলাভবনের ছাত্র দীননাথ ভার্গবকে। এরপর তিনমাস ধরে চিড়িয়াখানার সিংহদের দাঁড়ানো, বসা সমস্ত কিছু পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে লক্ষ্য করেন দীননাথ।

দীননাথের বানানো পুরনো অশোক স্তম্ভের একটি প্রতিরূপ আজও তাঁর পরিবারের কাছে সংরক্ষিত আছে। পুরনো অশোক স্তম্ভের সিংহগুলির মুখ সামান্য খোলা ও দাঁত দেখা যাচ্ছে। অশোক স্তম্ভের নীচে সোনালি রঙে জ্বলজ্বল করছে ‘সত্যমেব জয়তে’।

দীননাথ ভার্গবের পুত্রবধূ এই বিতর্কে মুখ খুলতে চাননি। তিনি কোনটা ভাল, কোনটা খারাপ এ নিয়ে কোনও মন্তব্যও করেননি। তিনি দেশবাসীকে পুরনো অশোক স্তম্ভের নির্মাণকর্তাকে মনে রাখানোর জন্য মধ্যপ্রদেশে দীননাথ ভার্গবের নামে একটি আর্ট গ্যালারি বানানোর প্রস্তাব জানিয়েছেন।   

মধ্যপ্রদেশের বেতুল শহরে জন্মেছিলেন দীননাথ ভার্গব। ২০১৬ সালের ২৪ ডিসেম্বর, ৮৯ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন পুরনো অশোক স্তম্ভের নির্মাণকর্তা।

কয়লা পাচার কাণ্ডে সিবিআইয়ের জালে ইসিএলের বর্তমান ও প্রাক্তন জিএম-সহ ৭ আধিকারিক  

You might also like