Latest News

বৃষ্টিতে প্রয়াগরাজে বালি ধুয়ে গঙ্গাপাড়ে বেরিয়ে পড়ল গেরুয়া কাপড়ে ঢাকা কয়েকশ মৃতদেহ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সে এক ভয়ঙ্কর দৃশ্য। বৃষ্টিতে বালির স্তর ধুয়ে গিয়েছে, বেরিয়ে পড়েছে গেরুয়া কাপড়ে ঢাকা শয়ে শয়ে মৃতদেহ!  উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজের সঙ্গম এলাকায়। ড্রোন থেকে তোলা বিদেশি সংবাদমাধ্যমের তোলা ছবিতে পরিষ্কার, গঙ্গার তীরে প্রচুর মৃতদেহ বালিতে গর্ত খুঁড়ে পুঁতে দেওয়া হয়েছিল। অনেক মৃতদেহ বৃষ্টির তোড়ে  গঙ্গার পাড়ে ভেসে গিয়েছে। এ নিয়ে তীব্র সমালোচিত যোগী আদিত্যনাথ সরকার। এলাকার বাসিন্দারা প্রবল আতঙ্কে ভুগছেন। কুকুরের  দল গঙ্গার পাড়ে বালি খুঁড়ে মৃতদেহ বের করে ছিঁড়ে খুবলে খাচ্ছে বলেও অভিযোগ শোনা যাচ্ছে। ড্রোনে ওঠা ফুটেজে প্রকাশ, বাঁশের লাঠি দিয়ে জায়গা আলাদা করে গেরুয়া কাপড়ে ঢেকে বালির গভীরে চাপা দেওয়া হয়েছিল মৃতদেহগুলি। বৃষ্টির জলে গেরুয়া কাপড় এদিকওদিক সরে গিয়েছে।  মৃতদেহগুলি কাদের, করোনায় মৃতদের নাকি অন্য কিছু? স্পষ্ট নয়।

এই বীভত্স দৃশ্য সামনে আসতেই সমালোচনার মুখে প্রয়াগরাজ পুরসভা সঙ্গমে গঙ্গাতীরে টিম পাঠায়। বালিতে পোঁতা দেহগুলির জায়গা চিহ্নিত করতে ব্যবহার করা বাঁশের দণ্ডগুলিও সরিয়ে ফেলা হয়। পুরকর্মীরা আপাততঃ আবার দেহগুলি গঙ্গাতীরেই বালিতে ঢেকে দিয়েছেন। যাঁরা মৃতকে সমাধিস্থ করার রীতি মানেন, তাঁদের আলাদা স্থান বরাদ্দ করা হয়েছে। মৃতদের যাতে গঙ্গার পাড়ে বালিচাপা দেওয়া না হয়, সেজন্য পর্যাপ্ত কাঠের ব্যবস্থা হয়েছে। দেহগুলি পুড়িয়ে দেওয়া হবে।

মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যের সব নদীর পাড়ে স্টেট ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্সের জল পুলিশ ও  প্রভিনশিয়াল আর্মড কনস্টেবুলারিকে লাগাতার পাহারার ব্যবস্থা করতে বলেছেন। কোনও অবস্থাতেই মৃতদেহ গঙ্গায় ভাসিয়ে দেওয়া যাবে না, তাঁর স্পষ্ট নির্দেশ।

যদিও রাজ্য সরকারের বারণ সত্ত্বেও অনেকেই এখনও গঙ্গার পাড়ে মৃতদেহ বালিতে চাপা দিয়ে চলেছেন। উত্তরপ্রদেশ সরকার ধর্মীয় নেতাদের সাহায্য চাইবে যাতে তাঁরা নদীতে মৃতদেহ ফেলা ঠিক নয়, এটা মানুষকে বোঝান। আদিত্যনাথ স্পষ্ট বলেছেন, শেষকৃত্যের অঙ্গ  হিসাবে মৃতদেহ নদীর পাড়ে সমাধিস্থ করা বা জলে ভাসিয়ে দেওয়া মোটেই পরিবেশ-সহায়ক নয়। শেষকৃত্য করতে হবে মৃতের প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধা বজায় রেখে, এজন্য আর্থিক সাহায্যের ব্যবস্থাও আছে বলে জানান সরকারি মুখপাত্র। তিনি জানিয়েছেন, মানুষকে সচেতন করতে হলে ধর্মীয় নেতাদের সঙ্গে কথা বলতে হবে। বেওয়ারিশ লাশ পড়ে থাকলেও ধর্মীয় রীতিনীতি, আচার মেনেই শেষকৃত্য হওয়া উচিত, বলেছেন আদিত্যনাথ।

You might also like