Latest News

রথে এবারেও ফাঁকা থাকবে পুরী, জানিয়ে দিল ওড়িশা সরকার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কোভিডের কারণে এবারেও কোপ পড়ল পুরীর রথযাত্রায়। লোকসমাগম ছাড়াই অনুষ্ঠিত হতে চলেছে উৎসব। এমনটাই সিদ্ধান্ত নিয়েছে ওড়িশা সরকার।

গত বছরেও পুরীর রথযাত্রায় কোনও পূণ্যার্থী হাজির থাকতে পারেননি। করোনার কারণে তখন লকডাউন চলছিল দেশ জুড়ে। এবছর পরিস্থিতি খানিকটা আলাদা ঠিকই। কিন্তু বিশাল জনসমাগমের অনুমতি দেওয়া সম্ভব নয় একেবারেই। তাই পুরীর রথযাত্রা যে আগের বছরের মতোই হবে, তা প্রত্যাশিত ছিল।

পুরীর রথযাত্রার আয়োজক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, করোনার দ্বিতীয় ঢেউতে রাজ্যের পরিস্থিতি টালমাটাল। বাড়তে থাকা সংক্রমণের কথা মাথায় রেখেই তাই এবার বিধিনিষেধ আরোপিত হয়েছে রথযাত্রার অনুষ্ঠানে। বলা হয়েছে, এবারেও রথযাত্রায় উপস্থিত থাকতে পারবেন কেবল মন্দির কর্তৃপক্ষ পুরোহিত ও সেবাইতরা। কোনও ভক্তসমাগমের অনুমতি দেওয়া হবে না।

আগামী ১২ জুলাই রথযাত্রা। এদিন প্রতি বছরের মতো নিয়ম মেনে রথে চেপে মাসির বাড়ির উদ্দেশে রওনা দেবেন জগন্নাথ বলরাম শুভদ্রা। তবে তাঁদের রথের দড়িতে টান দিতে পারবেন না ভক্তগণ। অতিমারী কেটে গেলে আবার মহাসমারোহে রথযাত্রা আয়োজিত হবে, আশা করে আছেন ভক্তরা।

এ ব্যাপারে ওডিশার স্পেশ্যাল রিলিফ কমিশনার প্রদীপ কে জেনা বলেছেন, “কোভিডের কথা ভেবেই এবছর পুরীর রথযাত্রায় ভক্তদের উপস্থিতিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হচ্ছে। কেবলমাত্র সেবাইতরাই এতে অংশগ্রহণ করতে পারবেন। এ বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশিকা মেনে চলা হবে।”

তবে রথযাত্রার পূণ্য মুহূর্ত দর্শন থেকে একেবারে বঞ্চিত হবেন না ভক্তরা। এক্ষেত্রে এবারেও গতবছরের পন্থা অবলম্বন করা হবে। ভার্চুয়াল মাধ্যমে লাইভ টেলিকাস্ট করা হবে রথের। সংবাদমাধ্যম মারফত তা দেখতে পারবেন সকলে।

ওড়িশা সরকারের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, রথের সময় পুরীতে কার্ফু জারি থাকবে। বাড়তি জনসমাগম যাতে না হয় সে কারণেই এই ব্যবস্থা বলে জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ।

You might also like