Latest News

দেশে প্রথম বিরল গ্রুপের রক্ত খোঁজ এক ব্যক্তির শরীরে, বিশ্বে আর মাত্র ৯ জনের আছে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিশ্বে দশম আর দেশে প্রথম। বিরল ইএমএম নেগেটিভ (EMM Negative) গ্রুপের রক্তের খোঁজ মিলল গুজরাতের ৬৫ বছর বয়সী এক ব্যক্তির শরীরে। হার্টের সার্জারির জন্য হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন ওই ব্যক্তি। ব্লাড টেস্ট করতে গিয়ে তাজ্জ হয়ে যান ডাক্তারেরা। দেখা যায় রক্তের চারটি গ্রুপের (A, B, O এবং AB) সঙ্গে তাঁর রক্তের কোনও মিলই নেই। এরপর পরীক্ষা করে জানা যায় বিরল ইএমএম নেগেটিভ রক্ত রয়েছে তাঁর শরীরে। এমন রক্তের গ্রুপ বিশ্বে আর মাত্র ৯ জনের আছে বলে জানা গেছে।

হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে ওই ব্যক্তি আমদাবাদের একটি হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের জন্য ভর্তি হন। ওই হাসপাতালের চিকিৎসক সন্মুখ যোশী জানিয়েছেন, স্থানীয় একটি রক্ত পরীক্ষা কেন্দ্রে তাঁর রক্তে গ্রুপ জানার জন্য নমুনা পাঠানো হয়। কিন্তু রক্তের গ্রুপ (EMM Negative) কিছুতেই জানা যাচ্ছিল না। তাই রক্তের নমুনা পাঠানো হয় আহমেদাবাদের প্রথমা ল্যাবরেটরিতে। সেখানেই জানতে পারা যায় তাঁর রক্তের গ্রুপ বিরলতম ইএমএম নেগেটিভ। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ভারতের এই প্রথম কোনও ব্যক্তির দেহে বিরলতম এই রক্তের গ্রুপের হদিশ মিলল। পৃথিবীতে মাত্র নয় জনের শরীরে এই রক্ত রয়েছে। রাজকোটের ওই ব্যক্তি হলেন পৃথিবীতে দশম ব্যক্তি যাঁর শরীরের ইএমএম নেগেটিভ গ্রুপের রক্ত পাওয়া গেছে।

আমাদের শরীরে রক্তের কোষগুলোতে ৩৭৫টি অ্যান্টিজেন থাকে। এই অ্যান্টিজেনগুলোর সমন্বয় নির্ধারণ করে কোনও রক্তের গ্রুপ ঠিক কী হবে। রক্তের এই শ্রেণিবিন্যাস নির্ভর করে লোহিত রক্ত কণিকা বা এরিথ্রোসাইটের উপর। লোহিত রক্তকণিকার সারফেসে উপস্থিত অ্যান্টিজেন এ বা অ্যান্টিজেন বি-এর উপস্থিতি বা অনুপস্থিতির উপরেই নির্ভর করে রক্তের গ্রুপ টাইপ এ, টাইপ বি, টাইপ এবি বা টাইপ ও। প্রত্যেকটি রক্তের গ্রুপ (EMM Negative) আবার দু ভাগে বিভক্ত ‘পজিটিভ’ এবং ‘নেগেটিভ’। গুজরাটের ওই ব্যক্তির শরীরে যে গ্রুপের রক্ত পাওয়া গেছে তা এই চারটি গ্রুপের মধ্য়ে পড়ে না।  ইএমএম অ্যান্টিজেনের ঘাটতির কারণে ইন্টারন্যাশনাল সোসাইটি অফ ব্লাড ট্রান্সফিউশন এই বিশেষ ব্লাড গ্রুপের নাম দিয়েছে ইএমএম নেগেটিভ।

Blood type - Wikipedia

এই ব্লাড গ্রুপের লোকজন কাউকে রক্ত ​​দিতে পারবেন না। তাঁরা কারও থেকে রক্ত ​​নিতেও পারবে না। মানুষের জিন এবং জেনেটিক ডিসঅর্ডারের তালিকা অনুযায়ী, এই গ্রুপের রক্তকে ৪২ তম গ্রুপ হিসেবে মনোনীত করা হয়েছে। জানা গেছে, পিআইজিজি জিনের মিউটেশনের কারণে এমন গ্রুপের রক্ত তৈরি হয় যা অতি বিরল। গুজরাটের ওই ব্যক্তির জন্য এবার রক্ত কোথা থেকে পাওয়া যাবে সে নিয়েই চিন্তায় রয়েছেন ডাক্তারেরা।

অর্পিতার বেলঘরিয়ার ফ্ল্যাটের শৌচাগারেও টাকা খুঁজে পেল ইডি, প্লাস্টিকের প্যাকেটে মুড়িয়ে রাখা ছিল

You might also like