Latest News

পেগাসাস বিতর্ক: ১০ দিনে কেন্দ্রের বক্তব্য শুনে কমিটি গঠন নিয়ে সিদ্ধান্ত সুপ্রিম কোর্টের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পেগাসাস অ্যাপের মাধ্যমে ফোনে আড়িপাতার অভিযোগের স্বাধীন, নিরপেক্ষ তদন্ত চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে একগুচ্ছ পিটিশন জমা পড়েছে। সে ব্যাপারে কেন্দ্রকে নোটিস দিল শীর্ষ আদালত। ইজরায়েলি আড়িপাতা যন্ত্র ব্যবহারে অভিযোগের ব্যাপারে সরকারকে ১০ দিনের মধ্যে জবাব দিতে বলেছে বেঞ্চ। কেন্দ্রের বক্তব্য জানার পরই একটি কমিটি গঠনের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে তারা।

তবে একইসঙ্গে বেঞ্চ এও স্পষ্ট করে দিয়েছে, জাতীয় নিরাপত্তার প্রশ্নে আপস করতে হতে পারে, এমন কিছু প্রকাশ  করার  প্রয়োজন নেই। প্রধান বিচারপতি এন ভি রামান্নার নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ বলেছে, ১০দিন বাদে তারা বিষয়টি বিবেচনা করবে, কোন পন্থা নেওয়া উচিত, খতিয়ে দেখবে। বেঞ্চের বাকি সদস্যরা হলেন বিচারপতি সূর্য কান্ত ও বিচারপতি অনিরুদ্ধ  বোস।  কেন্দ্র বেঞ্চের সামনে দাবি করেছে, পেগাসাস বিতর্কে কিছুই আড়াল  করার নেই। বিষয়টির সঙ্গে ‘জাতীয় নিরাপত্তা’ জড়িত।

বেঞ্চ বলেছে, রাষ্ট্রের সুরক্ষার জন্য কিছু প্রকাশ করা হচ্ছে না। কিছু বিশিষ্ট মানুষজন ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ তুলেছেন।  বিষয়টা হল, এটা করা যায়, তবে শুধুমাত্র উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের সম্মতি সহ। কর্তৃপক্ষ আমাদের সামনে হলফনামা দিলে সমস্যা কোথায়?

কেন্দ্রের হয়ে সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা বলেন, আমরা সকলেই নিজেদের অধিকারেই দায়িত্বশীল নাগরিক। সরকার বিশেষজ্ঞ গোষ্ঠীর সামনে এটা বলতে আমাদের আপত্তি নেই।  ধরা যাক, কোনও সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠী তার স্লিপার সেলের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে প্রযুক্তি কাজে লাগায়, আর আমরা বলছি, পেগাসাস ব্যবহার করছি না। সেক্ষেত্রে তারা এমনভাবে নিজেদের প্রযুক্তি খাটাবে যে পেগাসাস তা ধরতে পারবে না।

মেহতা সওয়াল  করেন, বিষয়টি নিয়ে জনজীবনে বিতর্ক চলতে পারে না। এধরনের সফটওয়্যার সব দেশই কেনে, পিটিশনাররা চাইছেন, সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয়েছে না হয়নি, সেটা জানানো হোক। কিছু আমরা সেটা জানিয়ে দিলে সন্ত্রাসবাদীরা আগাম প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নিয়ে নেবে। আদালতের কাছ থেকে তো কিছু লুকোতে পারি না আমরা।

মেহতা আরও বলেন, বিস্তারিত তথ্য বিশেষজ্ঞ কমিটির কাছেই জমা দেওয়া যেতে পারে। কমিটি হবে নিরপেক্ষ। আপনারা সংবিধানিক আদালত হিসাবে কি চান, এধরনের ইস্যু আদালতের সামনে প্রকাশ করে জনজীবনে বিতর্কের জন্য হাজির করা হোক? কমিটি তার রিপোর্ট আদালতে জমা দেবে। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে কী  করে সেনসেশন, উত্তেজনা ছড়ানো যায়।

সোমবারের শুনানির সময় কেন্দ্র দ্ব্যর্থহীন ভাষায় পেগাসাস প্রশ্নে পিটিশনারদের তোলা যাবতীয় অভিযোগ খারিজ করে সর্বোচ্চ আদালতে হলফনামা দিয়ে জানায়, কিছু স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠীর যে কোনও মিথ্যা ভাষ্য কাটাতে ও উত্থাপিত ইস্যুগুলি পরীক্ষা করে দেখতে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি তৈরি করা হবে, যারা ইস্যুটির সব দিক খতিয়ে দেখবে।

তদন্ত দাবি  করে সর্বোচ্চ আদালতে একাধিক পিটিশন পেশ করে বলা হয়েছে, একটি গ্লোবাল মিডিয়ার তদন্তে প্রকাশ, পেগাসাস সরকারের সমালোচক সহ নানা স্তরের লোকজনের ফোনে ঢুকিয়ে আড়িপাতা হয়ে থাকতে পারে। ইজরায়েলি সংস্থাটির দাবি, তারা পেগাসাস কেবলমাত্র নির্দিষ্ট কিছু সরকারকেই দিয়েছে অপরাধী, সন্ত্রাসবাদীদের বিরুদ্ধে ব্যবহারের জন্য।

You might also like