Latest News

সন্ত্রাসবাদের বিষদাঁত ভাঙতে জম্মু কাশ্মীর জুড়ে এনআইএ-র তল্লাসি অভিযান অব্যাহত

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গত কয়েকদিন ধরেই সন্ত্রাসবাদী চক্রান্ত মামলায় (terrorism conspiracy case) জম্মু ও কাশ্মীরে (jammu kashmir) তল্লাসি অভিযান (search) চলছে ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সির (এনআইএ)(nia)। শুক্রবারও সকাল থেকেই জম্মু কাশ্মীরের নানা জায়গায় ছড়িয়ে পড়ে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার একাধিক টিম। লস্কর-ই-তৈবা, জয়েশ-ই-মহম্মদ, হিজবুল  মুজহিদিন, আল বদর  ও  তাদের মতো নানা  নিষিদ্ধ সংগঠনের লোকজন, রেজিস্ট্যান্স ফ্রন্ট, পিপল এগেইনস্ট ফ্যাসিস্ট ফোর্সেসের মতো গোষ্ঠীর সদস্যরা জম্মু কাশ্মীর, দেশের অন্য বড় শহরগুলিতে হামলার চক্রান্ত করেছে বলে দাবি এনআইএর। ইদানীং বোধহয় এমন কোনও দিন যায়নি যেদিন জম্মু ও  কাশ্মীর সন্ত্রাসবাদী হামলার হাত থেকে রেহাই পেয়েছে। হামলার শিকার  যারা, তাদের অধিকাংশই নিরীহ নাগরিক। ফলে আতঙ্ক ছড়িয়েছে উপত্যকায়। তবে পাল্টা নিরাপত্তাবাহিনীর অভিযানে গত ২ সপ্তাহে এখনও পর্যন্ত খতম হয়েছে ১৫ সন্ত্রাসবাদীও, জানিয়েছেন কাশ্মীরের আইজিপি বিজয় কুমার।

গত বুধবার এনআইএ গোয়েন্দারা শ্রীনগর, বারামুলা, সোপোর, পুলওয়ামা, কুলগাম জেলায় সন্ত্রাসবাদী হামলার চক্রান্ত মামলায় ১১টি জায়গায় তল্লাশি অভিযান চালিয়ে চার অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেন। এরা সকলেই  নিষিদ্ধ জঙ্গি গোষ্ঠীগুলির ওভারগ্রাউন্ড কর্মী, সন্ত্রাসের সহযোগী বলে প্রাথমিক তদন্তে বেরিয়েছে, জানিয়েছেন জনৈক এনআইএ অফিসার। সন্ত্রাসবাদীদের পরিকাঠামোগত সাহায্য, মালপত্র সরবরাহ করত এরা। এদের একজন কুলগামের, বাকি তিনজনই শ্রীনগরের বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে।

এনআইএ কর্তাটি বলেন,  ১০ অক্টোবর মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু হয়। এখনও পর্যন্ত মোট ৯ জন অভিযুক্ত গ্রেফতার হয়েছে। তল্লাসি অভিযানে প্রচুর ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি, আপত্তিকর জেহাদি প্রচারপত্র, পোস্টার উদ্ধার হয়েছে।

 

 

 

 

 

 

 

You might also like