Latest News

বাবা রামদেবের মতো দেখুন, পেট্রোল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধিতে কটাক্ষ শশী থারুরের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: অগ্নিমূল্য পেট্রোল-ডিজেল। গত এক সপ্তাহ ধরে দেশজুড়ে বেড়েই চলেছে জ্বালানি তেলের দাম। এক ধাক্কায় বেড়েছে রান্নার গ্যাসের দামও। আর এই পেট্রোল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে বিজেপিকে কটাক্ষ করতে গিয়ে যোগগুরু রামদেবের প্রসঙ্গ টানলেন কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুর।

রামদেবের একটি কার্টুন নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন তিনি। সেখানে দেখা যাচ্ছে একটি পেট্রোল পাম্পে শীর্ষাসন করছেন বাবা রামদেব। সামনে একটি বোর্ডে দাম লেখা ৯০ টাকা লিটার। বোঝাই যাচ্ছে জ্বালানি তেলের দাম। ক্যাপশনে থারুর লিখেছেন, “আপনারা যদি বাবা রামদেবের মতো যোগাসন করতে পারেন তাহলে দেখতে পাবেন পেট্রোলের দাম ৬ টাকা লিটার।” ইংরেজিতে ৯-কে উল্টো করে দেখলে ৬ মনে হয়। সেই কথা এখানে বলতে চেয়েছেন তিরুঅনন্তপুরমের সাংসদ।

টানা আটদিন ধরে বাড়ছে পেট্রোল-ডিজেলের দাম। মুম্বইয়ে পেট্রোলের দাম ৯৫ টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছে। বাকি মেট্রো শহরগুলিতেও ৯০-এর কাছাকাছি বা তার থেকে বেশ। মধ্যপ্রদেশের ভোপালে গত রবিবার প্রিমিয়াম পেট্রোল ১০০ টাকা লিটার বিক্রি হয়েছে।

গত ৮ জানুয়ারি থেকেই জ্বালানি তেলের দাম ঊর্ধ্বমুখী। তার আগে মাসখানেক একই জায়গায় স্থির ছিল দাম। জানা গিয়েছে, বিশ্বে কোভিড টিকাকরণ শুরু হওয়ার পরেই ক্রুড অয়েলের দাম বাড়তে শুরু করেছে। আর এই ক্রুড অয়েলের দাম বাড়ার ফলেই জ্বালানি তেলের দামও বাড়ছে।

জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যে অনেক তেলের কোম্পানি যোগানেও কমতি করেছে। তার ফলে চাহিদা পূরণ না হওয়ায় ফের বাড়তে শুরু করেছে পেট্রোল ও ডিজেলের দাম। এইভাবে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় সমস্যায় পড়েছে মধ্যবিত্ত মানুষ।

এই মূল্যবৃদ্ধির জন্য মোদী সরকারকে দায়ী করছেন বিরোধীরা। অবশ্য তার মাঝেই কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান জানিয়েছেন, আন্তর্জাতিক পদ্ধতিতে জ্বালানি তেলের দাম নির্ধারিত হয়। সেখানে সরকারের কিছু করার থাকে না। গত ৩০০ দিনের মধ্যে প্রায় ২৫০ দিন সরকার জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায়নি বা কমায়নি।

You might also like