Latest News

গোয়ায় প্রার্থীদের মন্দির-মসজিদ-গির্জায় নিয়ে শপথ নেওয়াল কংগ্রেস, ‘জিতে দল ছাড়ব না’

দ্য ওয়াল ব্যুরো: প্রথমে অনেকেরই মনে হয়েছিল ঘুরতে বেরিয়ে পর্যটকেরা বুঝি শহরের নামকরা মন্দির, মসজিদ, গির্জা দেখতে এসেছেন। কিন্তু গোটা বিশ্বের পর্যটকদের গন্তব্য হলেও গোয়াতেও করোনার কারণে এখন নানা বিধিনিষেধ। তার অন্যতম হল দল বেঁধে ঘোরাঘুরি নিষিদ্ধ। তাহলে বাস চড়ে এসেছেন কারা?

বাস আরোহীদের পরিচয় জানার পর রাজধানী পানাজির মানুষ বিস্মিত হয়েছেন। বাসযাত্রীরা ছিলেন গোয়া বিধানসভার আসন্ন নির্বাচনে কংগ্রেসের প্রার্থী। ১৪ ফেব্রুয়ারি সেখানে ভোট। ৪০ বিধানসভা আসনের মধ্যে কংগ্রেস ৩৪জন প্রার্থীর নাম প্রকাশ করেছে। ছয়টি আসনে প্রার্থী দেওয়ার কথা শরিক গোয়া ফরওয়ার্ড পার্টির।

প্রদেশ কংগ্রেস শনিবার পানাজিতে দলের ৩৪ প্রার্থীকে বাসে চাপিয়ে প্রথমে যায় শহরের মহালক্ষ্ণী মন্দিরে। সেখান থেকে যায় স্থানীয় একটি গির্জা ও মসজিদে। সব জায়গাতেই তাদের শপথ নিতে হয়েছে, বিধানসভা নির্বাচনে জয়ী হলে আগামী পাঁচ বছর কংগ্রেসেই থাকব। কোনও পরিস্থিতিতেই দল ছেড়ে যাব না।

কেন এই অভিনব শপথ গ্রহণ?

২০১৭-র নির্বাচনে গোয়ায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পেলেও সবচেয়ে বেশি আসনে জিতেছিল কংগ্রেস। হাত চিহ্নের প্রার্থী জেতে ১৭টি আসনে। কিন্তু মাত্র ১৩টি আসন জিতে সরকার গড়ে বিজেপি। কংগ্রেসের ১০ বিধায়ক দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেয়। তাতেও ভাঙন থামেনি। বাকি সাত বিধায়কের মধ্যে এখন দলের সঙ্গে আছে মাত্র দু’জন। বিজেপির পর তৃণমূলও থাবা বসায় কংগ্রেস পরিষদীয় দলে। ফলে ১৩ আসনে জেতা বিজেপির বিধায়ক সংখ্যা এখন ২৭। নির্দলরাও পদ্ম-শিবিরে।

এই পরিস্থিতিতে আগামী দিনে পরিষদীয় দল অটুট রাখতে ঈশ্বরের কাছে শপথই একমাত্র উপায় বলে মনে করেছে প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্ব। গোয়ায় দলের নির্বাচনের দায়িত্বে আছেন দেশের প্রাক্তন অর্থ ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা প্রবীণ নেতা পি চিদম্বরম। তিনি স্বয়ং ছিলেন বাসে। ছিলেন প্রদেশে কংগ্রেসের শীর্ষ নেতারাও। এক নেতার কথায়, ঈশ্বরকেও মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিলে আর তো কিছুই করার থাকে না। গরু-ছাগল তো নয় যে বেঁধে রাখব।

 

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকাসুখপাঠ

You might also like