Latest News

চার কৃষক নেতাকে খুনের ছক, ট্র্যাক্টর র‍্যালিতে গুলি, অভিযুক্তকে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দিলেন কৃষকরা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দিল্লি-হরিয়ানা সীমান্তে সিঙ্ঘুতে এক ব্যক্তিকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দিলেন আন্দোলনরত কৃষকরা। অভিযোগ, ওই ব্যক্তিকে পাঠানো হয়েছিল ২৬ জানুয়ারি ট্র্যাক্টর র‍্যালি চলাকালীন অশান্তি পাকানোর জন্য। এমনকি কিছু কৃষক নেতাকে খুনের ছকও ছিল। এই কাজের জন্য ১০ জনের একটি দলকে পাঠানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন কৃষকরা। তাদেরই মধ্যে ছিল ওই ব্যক্তি। সংবাদমাধ্যমের সামনে নিজেদের পরিকল্পনার কথা স্বীকারও করেছে ওই ব্যক্তি। জানিয়েছে, এই কাজের জন্য নাকি পুলিশের কাছেই প্রশিক্ষণ পেয়েছে তারা।

প্রায় দেড় মাস ধরে কেন্দ্রের পাশ করে তিনটি কৃষি আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলন করছেন কৃষকরা। কেন্দ্রের সঙ্গে এগারো দফা বৈঠকের পরেও কোনও সমাধান সূত্র বের হয়নি। তাই আগামী ২৬ জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবসের দিনে দিল্লিতে ট্র্যাক্টর র‍্যালির পরিকল্পনা করেছে কৃষক সংগঠনগুলি। সেখানেই অশান্তি পাকানোর পরিকল্পনা ছিল বলে অভিযোগ।

শুক্রবার সন্ধেবেলা আটক করা হয় ওই ব্যক্তিকে। সংবাদমাধ্যমের সামনে মুখে কালো কাপড় পরা ওই যুবক নিজেদের পরিকল্পনার কথাও জানায়। সে বলেন, “আমাদের পরিকল্পনা ছিল ২৬ জানুয়ারি যখনই দিল্লি পুলিশ ট্র্যাক্টর র‍্যালি আটকানোর চেষ্টা করবে তখনই মিছিলের সামনের সারি থেকে গুলি চালানো। আমাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল প্রথমে কৃষকদের থামানোর চেষ্টা করা। যদি তারা না থামে তাহলে গুলি চালানো।”

ওই ব্যক্তি আরও জানায়, “২৪ জানুয়ারি আমাদের পরিকল্পনা ছিল মঞ্চের মধ্যে চার নেতাকে গুলি করে খুন করা। রাই পুলিশ স্টেশনের এসএইচও প্রদীপ সিং আমাদের প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। যখনই উনি আমাদের সঙ্গে দেখা করতে এসেছেন, মুখে মাস্ক পরে ছিলেন।”

অবশ্য জানা গিয়েছে, রাই পুলিশ স্টেশনের এসএইচও-র নাম বিবেক মালিক। সেখানে প্রদীপ বলে কোনও পুলিশ কর্মী নেই। গত সাত মাস ধরে বিবেক মালিকই সেখানে পোস্টেড রয়েছেন। তিনি প্রেস কনফারেন্স দেখে অবাক হয়ে যান।

সংবাদমাধ্যমের সামনে ওই ব্যক্তি আরও জানিয়েছে, তাদের দলে আরও নয় জন রয়েছে। তাদের মধ্যে নাকি দুই মহিলাও রয়েছে। যদিও কারও নাম বা তারা কোথায় রয়েছে সে জানায়নি।

এই ঘটনার পরে এক কৃষক নেতা জানিয়েছেন, “যে চার কৃষক নেতাকে খুনের পরিকল্পনা করা হয়েছিল তাদের ছবি দেখে চিহ্নিত করেছে ওই ব্যক্তি। ২৩ জানুয়ারির পরে যে কোনও দিন তাদের খুন করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছিল।”

ধৃত ব্যক্তিকে এই মুহূর্তে জেরা করছে সোনিপত পুলিশ। তার কাছ থেকে অন্যদের খোঁজ জানার চেষ্টা করছে তারা।

You might also like