Latest News

নাকে ড্রপ নিলে ফুসফুসে সংক্রমণ হবে না, করোনা সারানোর ন্যাজাল স্প্রে আসছে দেশে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: করোনা সারাতে এখন আর সুঁচ ফুটিয়ে ইঞ্জেকশন দিতে হবে না। খাওয়ার বড়ি, ট্যাবলেট ভ্যাকসিন আসছে দেশে। নাকে টানার স্প্রে-ও আনছে একাধিক কোম্পানি। ভারত বায়োটেকের ন্যাজাল ভ্যাকসিনে ছাড়পত্র দিয়েছে কেন্দ্রীয় ড্রাগ কন্ট্রোল। এবার নাকে টানার স্প্রে আনছে মুম্বইয়ের ওষুধ তৈরির কোম্পানি গ্লেনমার্ক। নাক দিয়ে টানলে তা গলা দিয়ে পৌঁছবে ফুসফুসে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ফুসফুস অবধি পৌঁছতেই পারবে না বলে দাবি গবেষকদের।

মুম্বইয়ের গ্লেনমার্ক ফার্মাসিউটিক্যালসের সঙ্গে কানাডার কোম্পানি স্যানোটাইজ মিলে এই ওষুধ তৈরি করেছে। গ্লেনমার্ক জানিয়েছে, এটি একধরনের নাইট্রিক অক্সাইড ন্যাজাল স্প্রে। নাকে ড্রপ নেওয়ার মতো টানতে হবে। প্রাপ্তবয়স্কদের জন্যই এই ওষুধ। হাই-রিস্কে রয়েছেন যে কোভিড রোগীরা তাঁদের জন্যই জরুরি ভিত্তিতে এই ওষুধ নিয়ে আসা হচ্ছে। দেশের বাজারে এই ন্যাজাল স্প্রে লঞ্চ করার কথা ঘোষণা করেছে গ্লেনমার্ক। সম্মতি দিয়েছে কেন্দ্রীয় ড্রাগ কন্ট্রোল।

ফ্যাবি-স্প্রে এই ব্র্যান্ড নামে বাজারে আসছে নাকের স্প্রে। গ্লেনমার্ক জানিয়েছে, সার্স-কভ-২ ভাইরাস নাক দিয়ে ঢুকে ফুসফুসে ছড়ায়। সেখানেই বিভাজিত হয়ে প্রতিলিপি তৈরি করে। তারপর সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়ে। নাক থেকে ফুসফুস অবধি শ্বাসযন্ত্রের এই পথটাই সুরক্ষিত রাখবে ন্যাজাল স্প্রে। আপার রেসপিরেটারি ট্র্যাক্টে সংক্রমণ ছড়াতে দেবে না। নাক, গলা, ফুসফুসে ভাইরাসের বিভাজন থামিয়ে দেবে।

দেশের ২০টি জায়গায় ক্লিনিকাল সেন্টারে প্রাপ্তবয়স্কদের ওপর এই নাকের স্প্রে-র ট্রায়াল হয়েছে। তিন পর্যায়ের ট্রায়ালের পরে এর কার্যকারিতা দেখে অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্রীয় ড্রাগ কন্ট্রোল।

করোনা সারানোর নাকের টিকা আনছে ভারত বায়োটেকও। ইউনিভার্সিটি অব উইসকনসিন-ম্যাডিসন এবং ফ্লু-জেন ভ্যাকসিন কোম্পানির সঙ্গে হাত মিলিয়ে ন্যাজাল ভ্যাকসিন তৈরি হয়েছে এই রিসার্চ ফার্মে। বিজ্ঞানীরা বলেছেন, এই ভ্যাকসিনের নাম  ‘বিবিভি১৫৪’ (BBV154)। এটি হবে ন্যাজাল ড্রপের মতো। শরীরে গিয়ে  ভাইরাস প্রতিরোধী অ্যান্টিবডি তৈরি করবে। ভারত বায়োটেক জানিয়েছে, যেহেতু ফ্লু ভাইরাস বা ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাসের সঙ্গে মিল রয়েছে সার্স-কভ-২ ভাইরাসের, তাই ফ্লু ভ্যাকসিন ক্যানডিডেটকেই ব্যবহার করা হচ্ছে এই ন্যাজাল ভ্যাকসিন তৈরির কাজে।

You might also like