Latest News

ভারত বানাচ্ছে উচ্চশক্তির মারণাস্ত্র ‘দুর্গা’, লেজ়ার রশ্মি ঘায়েল করবে শত্রুপক্ষের এয়ারক্রাফ্ট, যুদ্ধজাহাজ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মাইক্রোওয়েভ অস্ত্রের হামলা বা লেজ়ার রশ্মি ছুড়ে যুদ্ধ করার প্রক্রিয়া এখন রপ্ত করছে সব শক্তিধর দেশই। ভারী অস্ত্রশস্ত্রের বদলে শুধুমাত্র রশ্মির গুঁতোয় ঘায়েল করা যাবে অত্যাধুনিক যুদ্ধজাহাজ, সশস্ত্র ড্রোন বা এয়ারক্রাফ্টকে। এই ধরনের অস্ত্রকে বলা হয় হাই পাওয়ার এনার্জি ওয়েপন বা ‘ডাইরেক্ট এনার্জি ওয়েপনস’ ।  এমনই হাইটেক যুদ্ধাস্ত্রের দিকে ঝুঁকছে ভারতও। দেশের প্রতিরক্ষা গবেষণা সংস্থা তথা ডিআরডিও এমন এক প্রযুক্তির আবিষ্কার করেছে যা দিয়ে নিমেষের মধ্যে শত্রুসেনার সামরিক কাঠামো ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া যায়। শুধুমাত্র লেজ়ার রশ্মি ছুঁড়েই যে কোনও মারণাস্ত্রের মোকাবিলা করা যায়। দেশের তৈরি এই উচ্চশক্তির অস্ত্রের নাম ‘দুর্গা’ ।

দুর্গার মতোই তেজ হবে এই মারণাস্ত্রের। রশ্মির মাধ্যমে ইলেকট্রনের স্রোত গিয়ে ধ্বংস করে দেবে বিপক্ষের যুদ্ধাস্ত্র। মাঝপথেই থামিয়ে দেওয়া যাবে দূরপাল্লার মিসাইল। পারমাণবিক হামলা হলেও কাজে আসবে এই লেজ়ার ওয়েপন। ডিআরডিও এই মারণাস্ত্রের নাম দিয়েছে ‘দুর্গা ২’ ।

প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এইসব অস্ত্রকে চালনা করতে প্রচণ্ড শক্তি দরকার হয়। ডাইরেক্ট এনার্জি ওয়েপন ভবিষ্যতের কথা ভেবেই বানানো। নিউক্লিয়ার ওয়েপন নিয়ে যেভাবে হইচই হচ্ছে এবং অনেক দেশই গোপনে পারমাণবিক অস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছে, তাতে সাধারণ যুদ্ধাস্ত্রের পক্ষে এর মোকাবিলা করা সম্ভব নয়। লেজ়ার রশ্মি বা রেডিয়েশন ওয়েভ দিয়েই উচ্চপ্রযুক্তির অস্ত্রশস্ত্রকে কাবু করা সম্ভব। এই ধরনের মারণাস্ত্রের অনেকগুলো সুবিধা আছে, যেমন প্রথমত, শব্দের চেয়ে দ্রুত গতিতে ছুটে যেতে পারে লেজ়ার রশ্মিএইসব অস্ত্রকে চালনা করতে প্রচণ্ড শক্তি দরকার হয়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রতি সেকেন্ডে ৩ লক্ষ কিলোমিটার গতিতে ছুটে গিয়ে লক্ষ্যে আঘাত করে পারে লেজ়ার ওয়েপন। দ্বিতীয়ত, এই অস্ত্রের ওপরে মাধ্যাকর্ষণ শক্তি বা আবহাওয়া বদলের কোনও প্রভাব পড়ে না। তৃতীয়ত, সরাসরি লক্ষ্যে গিয়ে আঘাত করে এই মারণাস্ত্র। উচ্চ ক্ষমতার রেডিয়েশন দিয়ে মাঝপথেই ক্ষেপণাস্ত্রের শক্তিকে অকেজো করে দেওয়া যেতে পারে। যদি শত্রু সেনা ভারতীয় বাহিনীর সেনা ছাউনি বা সামরিক কাঠামো লক্ষ্য করে এমন ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করে তাহলে এই এনার্জি ওয়েপন ছুড়ে তাকে ঘায়েল করা সম্ভব।

Air Force researchers choose three companies to develop new directed-energy  weapons materials | Military & Aerospace Electronics

ডিআরডিও জানিয়েছে, দুর্গা (ডাইরেক্টলি আনরেস্ট্রিকটেড রে-গান অ্যারে)লেজ়ার ওয়েপনের প্রযুক্তি এখনও গবেষণার স্তরেই আছে। এর প্রোটোটাইপ তৈরি করে পরীক্ষা নিরীক্ষা চলছে। ১০০ কিলোওয়াট ওজনের এই ডাইরেক্ট এনার্জি ওয়েপন আগামী দিনে দেশের সবচেয়ে শক্তিশালী অস্ত্র হয়ে উঠবে তাতে কোনও সন্দেহই নেই। দিল্লির লেজ়ার সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি সেন্টারে এই অস্ত্রের নকশা তৈরি হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে ২৫ কিলোওয়াট ওজনের এনার্জি ওয়েপন তৈরি করা হয়েছে যা ব্যালিস্টিক মিসাইলের ক্ষমতা নষ্ট করতে পারে। ৫ কিলোমিটার দূর থেকে এই রশ্মি ছুড়ে যে কোনও ধরনের ব্যালিস্টিক মিসাইলের হামলা রুখে দেওয়া যেতে পারে।

India's Directed Energy Weapons for space warfare: Prospects and  consequences | ORF

কিছুদিন আগেই শোনা গিয়েছিল চিন নাকি মাইক্রোওয়েভ অস্ত্র বানাচ্ছে। এমনিতেও চিন, রাশিয়া, ইজরায়েল ডাইরেক্ট এনার্জি ওয়েপন তৈরি করার কাজ শুরু করে দিয়েছে। মাইক্রোওয়েভ অস্ত্র হল হিট ওয়েপন। ইলেকট্রোম্যাগনেটিক রশ্মি ছুড়ে হামলা করা যায়। ০.৬ মাইল দূর থেকেও এই অস্ত্রের নিশানা করা যায়। যদি মানুষের শরীরে এই রশ্মি ঢোকে তাহলে শরীরের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক বেড়ে যায়। শরীরের জল শুষে নিতে পারে এই রশ্মি। যার প্রভাব পড়ে অঙ্গপ্রতঙ্গগুলিতে। ডিআরডিও জানিয়েছে, মাইক্রোওয়েভ অস্ত্রও ডাইরেক্ট-এনার্জি ওয়েপনের মধ্যে পড়ে। লেজ়ার ওয়েপনের পাশাপাশি এই ধরনের অস্ত্র বানানোর পরিকল্পনাও আছে তাদের।

Aditya Project: DRDO's Directed Energy Weapon (DEW) Program | Indian  Defence News

ডিআরডিও-র বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, অ্যান্টি-ড্রোন ডাইরেক্ট এনার্জি ওয়েপন তৈরি করা হচ্ছে। এই অস্ত্র দুরকমের হয়। কটি ট্রেলার-মাউন্টেড। ১০ কিলোওয়াট লেজ়ার রশ্মি ছুড়ে ২ কিলোমিটার পাল্লার মধ্যে যে কোনও এরিয়াল টার্গেটকে নষ্ট করে দিতে পারে। অন্যটা, কমপ্যাক্ট ট্রাইপড-মাউন্টেড। ২ কিলোওয়াট লেজ়ার বিম দিয়ে ১ কিলোমিটার পাল্লায় যে কোনও অস্ত্র হামলা রুখে দিতে পারে। ব্যালিস্টিক মিসাইল, হাইপারসনিক ক্রুজ মিসাইল ও হাইপারসনিক গ্লাইড ভেহিকলসকে সহজেই কাবু করতে পারে এই অস্ত্র।

You might also like