Latest News

Sunday Street: রবিবার মুম্বইয়ের কিছু রাস্তা কয়েক ঘণ্টা শুধু পথচারীর জন্য, কী ভাবছে কলকাতা

দ্য ওয়াল‌ ব্যুরো: আগামীকাল থেকে প্রতি রবিবার (Sunday Street) মুম্বইয়ের বেশ কিছু গুরুত্তপূর্ণ রাস্তায় সকালে গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখা হবে। ওই সময় সাধারণ মানুষ নিজেদের ইচ্ছে মতো সময় কাটাতে পারবেন রাস্তাগুলিতে। গাড়ির হর্নের শব্দ শুনে রাস্তা ছেড়ে দিতে হবে না। রাস্তা, ফুটপাত, দুইই থাকবে পথচারীর দখলে।

মুম্বইয়ের পুলিশ কমিশনার সঞ্জয় পান্ডে এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন। তিনি জানান, আগামীকাল রবিবার (Sunday Street) থেকে শহরের ছয়-সাতটি বড় রাস্তায় এই সিদ্ধান্ত বলবৎ হবে। সকালে ৬’ টা থেকে ১০’ টা পর্যন্ত গাড়ি চলাচল বন্ধ থাকবে রাস্তাগুলিতে। ওই চার ঘণ্টা মানুষ হাঁটা, সাইক্লিং, যোগ ব্যায়াম এবং বিনোদনমূলক খেলাধুলার জন্য রাস্তা ব্যবহার করতে পারবেন। এক কথায় ‘গো অ্যাজ ইউ লাইক’, বলেন এক পুলিশ কর্তা।

Petrol Diesel price: ছ্যাঁকা দিচ্ছে জ্বালানি, পেট্রল-ডিজেলের দাম আরও বাড়ল

মুম্বই পুলিশের বক্তব্য, শহরের পার্কগুলিতে জায়গার অভাব। অনেকেই ইচ্ছে থাকা সত্বেও মর্নিং ওয়াকের সুযোগ থেকে বঞ্চিত (Sunday Street) । তাই একটি দিন কয়েক ঘণ্টা রাস্তাগুলি গাড়ি চলাচলের জন্য বন্ধ রেখে ভিন্ন উদ্যেশ্যে ব্যবহারের সুযোগ করে দেওয়া হচ্ছে। মুম্বই পুলিশ তাদের এই কর্মসূচির নাম রেখেছে ‘সানডে স্ট্রিটস’।

এই ব্যাপারে কী ভাবছে কলকাতা?

কলকাতা পুলিশের পদস্থ কর্তারা কেউই এই ব্যাপারে সরকারিভাবে কিছু বলতে রাজি হননি। তবে মুম্বই পুলিশের উদ্যোগকে বাস্তবসম্মত এবং জনমুখী বলে মনে করছেন তাঁরা। নাগরিকের সঙ্গে পুলিশের সু-সম্পর্ক স্থাপনে এই ধরনের উদ্যোগ যথেষ্ট কার্যকর বলে মনে করেন এক পুলিশ কর্তা। প্রসঙ্গত, মুম্বই পুলিশ সম্প্রতি পাসপোর্ট করানো বা চাকরিবাকরির ক্ষেত্রে পুলিশ ভেরিফিকেশনের কাজটি খুবই সরল করে দিয়েছে। এই কাজে এক প্রকার দুয়ারে পুলিশ কর্মসূচি চালু করেছে তারা। নয়া ব্যবস্থায় পুলিশ নাগরিকের বাড়িতে গিয়ে নথিপত্র পরীক্ষা করে আসছে। নাগরিককে থানায় ছুটতে হচ্ছে না।

মুম্বই পুলিশ যে সানডে স্ট্রিটস কর্মসূচি কাল থেকে চালু করতে চলেছে, বস্তুত, কলকাতায় এমন একটি উদ্যোগ চালু হয়েও বন্ধ হয়ে গিয়েছে। একটি সর্ব ভারতীয় সংবাদপত্র সংস্থা ও কলকাতা পুলিশ যৌথভাবে হ্যাপি স্ট্রিট নামে একটি কর্মসূচি চালু করেছিল। প্রতি রবিবার সকাল ১০ টা পর্যন্ত গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখা হত পার্ক স্ট্রিটে। ওই কয়েক ঘণ্টা সাধারণ মানুষ নিজেদের ইচ্ছে মত সময় কাটাতেন। কেউ সাইক্লিং করতেন। কেউ হন হন করে হাঁটতেন। জুটত অনেক গানের দল, নাচের দল। চুটিয়ে ছবি তুলতেন মানুষ। ভিড়ের মধ্যে কেউ সেই সব দৃশ্য আঁকতেন। একেবারে মেলা বসে যেত পার্ক স্ট্রিটে।

You might also like