Latest News

২৫ হাজার বেওয়ারিশ লাশের সদগতি করেছেন ‘পদ্মশ্রী’ মহম্মদ শরিফ, সব ধর্মের মানুষ আছে!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এবার পদ্ম পুরস্কার প্রাপক হিসাবে যাঁদের বাছাই করা হয়েছে, তাঁদের গতকাল রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের হাত থেকে সম্মান গ্রহণ করতে দেখে গোটা দেশ উচ্ছ্বসিত। ৭২ বছরের তুলসী গৌড়া, কমলালেবু বিক্রেতা হরেকালা হাজাব্বাদের মতো মানুষকে দেখে দেশবাসী বলছে,  সত্যি যাঁদের পাওয়ার কথা, তাঁরাই  এবার সম্মান পেলেন। সেই আপাত সাধারণ কৃতী লোকজনের অন্যতম মহম্মদ শরিফ। ৮৩ বছরের প্রাক্তন বাইসাইকেল মেকানিককে গতকাল পদ্মশ্রী (padma sri) পুরস্কার  দিয়ে সম্মানিত করেন রাষ্ট্রপতি কোবিন্দ। তাঁর হাত চেপে ধরেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। গত তিন দশকের বেশি ২৫ হাজারের বেশি বেওয়ারিশ (unclaimed dead body) মৃতদেহের নিজে হাতে শেষকৃত্য (last rites) করেছেন শরিফ চাচা নামে জনপ্রিয় উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যার (ayodhya) এই বাসিন্দা।

১৯৯২ সালে বাবরি মসজিদ ধ্বংস হওয়ার জেরে সাম্প্রদায়িক বিষ ছড়িয়ে পড়েছিল। তার মধ্যেই খুন হন তাঁর ছেলে রঈস। কেমিস্ট রঈস সুলতানপুর যাওয়ার পথে খুন হন। রেললাইনের ধারে তাঁর লাশ পড়েছিল। কুকুরে ছিঁড়ে খাচ্ছিল সেই বেওয়ারিশ লাশ। সেই থেকে শরিফ চাচা থানা, মর্গ, রেল স্টেশনে স্টেশনে ঘুরতেন বেওয়ারিশ লাশের সন্ধানে। খোঁজ পেলেই নিজে হাতে তার শেষকৃত্য করতেন। ওদের মধ্যেই হয়তো নিজের ছেলেকে দেখতে পেতেন। মৃতেরা যাতে একটু মর্যাদা পায়, সেজন্য হিন্দু, মুসলিম, শিখ, খ্রিস্টান নির্বিশেষে কত দেহের সদগতি করেছেন তিনি।  তারপর থেকে পুলিশ ৭২ ঘন্টায় কেউ দাবি করতে না এলে মৃতদেহ শরিফ চাচার হাতেই তুলে দেয় হয় পোড়ানো বা কবর দেওয়ার জন্য।

তাঁর সমাজসেবার (social service) কথা ছড়িয়ে পড়ে। আমির খানের সত্যমেব জয়তে টিভি শোয়েও অতিথি হিসাবে ডাক পেয়েছিলেন। ২০২০তেই তাঁর পদ্মশ্রী সম্মান নেওয়ার  কথা ছিল। কিন্তু কোভিড ১৯ পরিস্থিতিতে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান বন্ধ থাকায় তা হয়নি।

 

 

 

You might also like