Latest News

শ্রদ্ধাকে খুনের পরে একজন সাইকিয়াট্রিস্টের সঙ্গে ডেট করছিল আফতাব, কোন সূত্রে ধরা পড়ল খুনি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সেই ‘বাম্বল’ ডেটিং অ্য়াপ। এই অ্য়াপেই শ্রদ্ধা ওয়াকারের সঙ্গে পরিচয় হয়েছিল দিল্লির নৃশংস খুনি আফতাব আমিন পুনাওয়ালার। এরপরেই লিভ-ইন শুরু করেন দু’জনে। শ্রদ্ধাকে খুন করে কুচিকুচি করে কাটার পরেও ওই বাম্বল অ্যাপেই একাধিক মহিলার সঙ্গে পরিচয় করে ডেট করে আফতাব। কয়েকজনকে নিজের ফ্ল্য়াটেও নিয়েছিল বলে জেরায় জানিয়েছিল সে। তদন্তকারীরা বলছেন, ওই অ্য়াপেই একজন ডাক্তারের সঙ্গে আলাপ হয়েছিল আফতাবের। তাঁর সঙ্গেও ডেটও করছিল সে। ওই মহিলাকে জেরা করে অনেক সূত্র পেয়েছে পুলিশ।

ডাক্তারের নাম সামনে আনেননি তদন্তকারীরা। তবে জানা গেছে, ওই মহিলা একজন মনোবিদ ছিলেন। আফতাবের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ানোর পরে তাঁর সন্দেহ হয়। আফতাবের আচার-আচরণ ও মনোভাবের অনেকগুলো দিক দেখেছিলেন তিনি। জেরায় পুলিশকে সেসব জানিয়েওছিলেন। ওই মনোবিদের সূত্র ধরেই আফতাবের কাছে পৌঁছতে পেরেছিলেন তদন্তকারীরা।

 পুলিশি তদন্তে জানা গেছে, গত ১৮ মে ঝগড়ার সময় ছতরপুরের ফ্ল্যাটে গলা টিপে শ্রদ্ধাকে খুন করে আফতাব। এর পর শৌচালয়ে বসে তাঁর দেহ ৩৫ টুকরো করে বলে অভিযোগ। ১৮ দিন ধরে দেহের টুকরো ছড়িয়ে দেয় দিল্লির বিভিন্ন প্রান্তে। দেহের টুকরো ভরে রাখার জন্য ৩০০ লিটারের একটি ফ্রিজও কিনেছিল খুনি। জেরায় আফতাব খুনের কথা স্বীকার করলেও এখনও তার বয়ানে অনেক অসঙ্গতি আছে বলেই মনে করছে পুলিশ। দফায় দফায় আফতাবের পলিগ্রাফ টেস্ট হচ্ছে, এরপর নার্কো-অ্যানালিসিসও হবে।

গত বৃহস্পতি এবং শুক্রবার রোহিণীর ফরেন্সিক সায়েন্স ল্যাবরেটরি (এফএসএল)-তে পলিগ্রাফ পরীক্ষা হয়েছে আফতাবের। তার পরেও তদন্তকারীদের ধন্দ কাটেনি। এক আধিকারিক জানিয়েছেন, কিছু প্রশ্নের জবাবে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে মিথ্যা বলে গেছে আফতাব। তদন্তকারীরা এ বার আফতাবের নার্কো-অ্যানালিসিস পরীক্ষা করাতে চাইছেন।

You might also like