Latest News

২-৩ মাসের ব্যবধানে দুটি ডোজে কোভিশিল্ডের কার্যকারিতা বাড়ে ৯০ শতাংশ পর্যন্ত, বললেন পুনাওয়ালা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দ্রুত বাড়ছে করোনাভাইরাস সংক্রমণ। গত পরশু দৈনিক সংক্রমণ লাখ ছাড়িয়ে রেকর্ড করেছে।   গতকালও নতুন সংক্রমণ ছিল ৯৫ হাজারের ওপর। উদ্বেগে সরকার, আমজনতা। জোরকদমে চলছে  ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ। মূলতঃ এদেশে সিরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়ার তৈরি কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন বেশি চলছে।  কোভিশিন্ড বানিয়েছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়। তাদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে বৃহত্ ওষুধ নির্মাতা সংস্থা অ্য়াসট্রাজেনেকা। ভারতে যা বানাচ্ছে আদর পুনাওয়ালার সিরাম। কোভিড-১৯ সংক্রমণ হু হু করে বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে আজ পুনাওয়ালা  বললেন, কোভিশিল্ডের দুটি শট বা ডোজ প্রায় আড়াই থেকে তিন মাসের ব্যবধানে দেওয়া হলে ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা বা ক্ষমতা ৯০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়তে পারে। পুনাওয়ালা ব্যাখ্যা করেছেন, কোভিশিল্ডের একটি ট্রায়ালে দুটি ডোজ এক মাসের ব্যবধানে দিয়ে দেখা গিয়েছে, তা ৬০-৭০ শতাংশ কার্যকর হয়েছে। আবার আরেকটি গ্রুপে সামান্য কয়েক হাজার রোগীকে ২-৩ মাসের দূরত্ব রেখে দুটি ডোজ প্রয়োগ করে দেখা গিয়েছে, কোভিশিল্ডের কার্যকারিতা ৯০ শতাংশ। অন্য ভ্যাকসিনের ক্ষেত্রেও দুটি ডোজের মধ্যে ব্যবধান যত বেশি, কার্যকারিতা তত বেশি হবে বলে জানান পুনাওয়ালা।

প্রসঙ্গত, ভারত সরকারও সম্প্রতি কোভিশিল্ডের দুটি ডোজের মধ্যে ব্যবধান বাড়িয়ে আট সপ্তাহ পর্যন্ত করেছে। বিশ্বের অন্যান্য দেশে চালানো ট্রায়াল থেকে পাওয়া তথ্যে দেখা যায়, প্রথমটির ৬ সপ্তাহের বেশি সময়ের পর দ্বিতীয় ডোজ প্রয়োগ করা হলে ভ্যাকসিনের কার্যক্ষমতা বাড়ে। এই তথ্যের ভিত্তিতেই ভ্যাকসিন পরিচালনা সংক্রান্ত ন্যাশনাল এক্সপার্ট গ্রুপ সুপারিশ করে, কোভিশিল্ডের প্রথম ও দ্বিতীয় শটের ব্যবধান বাড়়িয়ে ৮ সপ্তাহ হোক। এই প্রেক্ষাপটেই প্রায় একই মতামত দিলেন পুনাওয়ালা।

তিনি আরও বলেন, ৫০ এর কম  বয়সিদের কোভিড-১৯ থেকে উল্লেখযোগ্য সুরক্ষা দেয় কোভিশিল্ডের একটি ডোজই।  পুনাওয়ালাকে উদ্ধৃত করে সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, জনসংখ্যার ৭০ শতাংশ একটি ডোজেই পুরোপুরি সুরক্ষিত থাকেন। কিন্তু দীর্ঘমেয়াদি সুরক্ষার জন্য দ্বিতীয় ডোজের প্রয়োজন।

পাশাপাশি কোভিড ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ নেওয়ার পরও মুখ মাস্কে ঢেকে রাখা, সামাজিক দূরত্ববিধি মেনে চলা জরুরি বলে জানান পুনাওয়ালা।

 

You might also like