Latest News

কোভিড ১৯ রোধে কোভ্যাক্সিনের কার্যকারিতা প্রায় ৭৮ শতাংশ, ল্যানসেটের প্রতিবেদন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: উপসর্গযুক্ত কোভিড ১৯ (covid 19) মোকাবিলায় ভারত সরকারের নিজস্ব মেডিকেল গবেষণা সংস্থা ও ভারত বায়োটেকের তৈরি কোভ্যাক্সিন (covaxin) ৭৭.৮ শতাংশ কার্যকর (efficacy)। দীর্ঘ গবেষণার পর দি ল্যানসেট (the lancet) জার্নালে প্রকাশিত প্রতিবেদনে একথা বলা হয়েছে। এছাড়া করোনাভাইরাসের সবচেয়ে বিপজ্জনক স্ট্রেন ডেল্টাকে (delta) ঠেকাতে কোভ্য়াক্সিন ৬৫.২ শতাংশ সক্ষম বলেও প্রাথমিক গবেষণায় প্রকাশ। যদিও সমীক্ষায় বলা হয়েছে, এ ব্যাপারে নিশ্চিত হতে আরও গবেষণার প্রয়োজন।
নামী মেডিকেল জার্নালটিতে বলা হয়েছে, চিরাচরিত, ইনঅ্যাক্টিভেটেড ভাইরাস প্রযুক্তি ব্য়বহার করা হয় কোভ্যাক্সিনে। তার দুটি ডোজ দেওয়ার দুসপ্তাহ বাদে শরীরে শক্তিশালী অ্যান্টিবডি তৈরি হতে দেখা গিয়েছে। এ ব্যাপারে ভারতে ২০২০র নভেম্বর ও ২০২১ এর মে মাসের মধ্যে ১৮ থেকে ৯৭ বছর বয়সসীমার ২৪,৪১৯ জনের ওপর যেমন খুশি বাছাই করা ট্রায়ালে ভ্যাকসিনের ফলে কোনও মৃত্যু বা বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি। কোভিড ১৯ এর যে কোনও ধরনের তীব্রতা মোকাবিলায় দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার ১৪ দিনের মাথায় ৭৭.৮ শতাংশ কার্যকারিতা তৈরি হয়।
এই অভ্যন্তরীণ সমীক্ষা করা হয়েছে ভারত বায়োটেকের ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা ও সুরক্ষা সংক্রান্ত ঘোষণার সঙ্গে সাযুজ্য রেখে। ভারত ও কয়েকটি দেশে এই ভ্যাকসিন ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া নিয়ে জানুয়ারি মাসে যে বিতর্ক, অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছিল, তা দূর করতে হয়ত সাহায্য করবে দি ল্যানসেটে বেরনো সমীক্ষা। সেসময় কোভ্যাক্সিনের চূড়ান্ত পর্যায়ের ট্রায়ালে সিলমোহর না পড়ায় টিকাকরণের প্রথম পর্যায়ে ব্যাপক ভয়, দ্বিধা দেখা গিয়েছিল। তারপর থেকে ১০০ মিলিয়নের বেশি কোভ্যাক্সিনের ডোজ সারা ভারতে বন্টন করা হয়েছে। গত সপ্তাহে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োগের জন্য ভ্যাকসিনের তালিকায় কোভ্যাক্সিনকে অন্তর্ভুক্ত করে। এই সিদ্ধান্ত গ্রহণে দেরি হচ্ছিল কেননা উপদেষ্টা গোষ্ঠী কোভ্যাক্সিনের বিশ্বব্যাপী প্রয়োগের চূড়ান্ত লাভ-ক্ষতি, ঝুঁকি মূল্যায়নের আগে ভারত বায়োটেকের কাছে বাড়তি ব্যাখ্যা চেয়েছিল।
কোভ্যাক্স গ্লোবাল ভ্যাকসিন শেয়ার করার উদ্যোগে ভারতের ভ্যাকসিন পাঠানোর প্রতিশ্রুতি পূরণে সুবিধা হতে পারে হু-এর সম্মতি ও ল্যানসেটেক গবেষণার ফলে।

হু এর টিকাকরণ সংক্রান্ত কৌশলগত উপদেষ্টা গোষ্ঠী ১৮ ও তার বেশি বয়সের লোকজনকে চার সপ্তাহের ব্যবধানে কোভ্যাক্সিনের দুটি ডোজ দেওয়ার সুপারাশ করে। কোম্পানির গাউডলাইন মেনেই এই সুপারিশ।

You might also like