Latest News

বরাবাঁকির পথ দুর্ঘটনায় নিহতদের প্রতি শোক, ২ লাখ টাকা, লখিমপুর নিয়ে নীরবই মোদী!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বরাবাঁকির পথ দুর্ঘটনায় (barabanki road accident) তিনি বিচলিত, শোকস্তব্ধ, মৃতদের পরিবারবর্গকে শোক, সমবেদনা (condolence) জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র  মোদী (narendra modi), কিন্তু রবিবারই যে খেরি লখিমপুরে (lakhimpur kheri) এত বড় মর্মান্তিক, ভয়াবহ ঘটনা ঘটে গেল, বিজেপি নেতার এসইউভির তলায় পিষে মারা গেলেন কয়েকজন কৃষক, হিংসার আগুনে গাড়ি জ্বলল, তা নিয়ে একটিও শব্দ খরচ করলেন না (silence)! বরাবাঁকি, লখিমপুর-দুটি জায়গাই উত্তরপ্রদেশে। লখিমপুরে সামগ্রিক হিংসার বলি হয়েছেন ৯ জন। বরাবাঁকিতেও  তাই। কিন্তু রাজনৈতিক মহল বিশেষতঃ বিজেপি-বিরোধীরা বলছেন, কেন লখিমপুরের ঘটনায় তিনি চুপ! যে ঘটনা নিয়ে খোদ সুপ্রিম কোর্ট স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে শুনানি করছে আজই, সে ব্যাপারে তাঁর কি কিছুই বলার নেই?

 

বরাবাঁকির জেলাশাসক আদর্শ সিং জানান, ট্রাক ও যাত্রীবাহী বাসের সংঘর্ষে ৯জন মৃত, জখম ২৭ জন। স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় আহতদের। কাউকে কাউকে লখনউ পাঠাতে হয়। বাসটি আসছিল দিল্ল থেকে। যাচ্ছিল লখনউ হয়ে বাহারাইচ। মুখোমুখি ট্রাকের সঙ্গে  ধাক্কা লাগে বাসের।  ভোরবেলার দুর্ঘটনার  খবর পেয়ে শোক প্রকাশ  করেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তিনি মৃতদের পরিবারপিছু ২ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ, আহতদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা এককালীন  সহায়তা ঘোষণা করেন। দুর্ঘটনার বলি লোকজনের পরিবারবর্গের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করে জখম লোকজনের সঠিক, যথাযথ চিকিত্সার জন্য  নির্দেশ দেন প্রশাসনিক কর্তাদের।

ঘটনাচক্রে লখিমপুরের ঘটনায় তিনি বেদনাহত বলে জানিয়েছিলেন যোগীও। তদন্তের নির্দেশও দেন। কিন্তু মোদী বরাবাঁকির পথ দুর্ঘটনায় নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর  জাতীয় ত্রাণ তহবিল থেকে ২ লাখ টাকা, আহতদের  প্রত্যেকের জন্য ৫০ হাজার টাকা সহায়তা ঘোষণা করলেও লখিমপুরের ঘটনা  নিয়ে মুখ খোলেননি।

লখিমপুরের ঘটনায় নাম জড়িয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অজয় মিশ্র, তাঁর ছেলে আশিস মিশ্রের। কৃষকদের দাবি, সেদিন তাঁদের ওপর দিয়ে চলে যাওয়া এসইউভিতে ছিলেন আশিস। যদিও মন্ত্রী ও তাঁর ছেলের দাবি, তাঁরা সেখানে ছিলেনই না। প্রধানমন্ত্রীর নীরবতায় প্রশ্ন, তিনি কি লখিমপুরের ঘটনাকে গুরুত্বহীন বলে দেখাতেই চুপ করে রয়েছেন!

 

You might also like