Latest News

শহিদ নয়! ছত্তিশগড়ের নিহত জওয়ানদের নিয়ে ‘কুরুচিকর’ পোস্ট, রাষ্ট্রদ্রোহিতার দায়ে গ্রেফতার অসমের লেখিকা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: অসমের সাহিত্যিক শিখা শর্মাকে রাষ্ট্রদ্রোহিতার দায়ে গ্রেফতার করল গুয়াহাটি সিটি পুলিশ।  তাঁকে ভারতীয় দণ্ডবিধির ১২৪ (এ) অর্থাত্ দেশদ্রোহিতা সহ নানা অভিযোগের ধারায় পুলিশ নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে।

গত শনিবার ছত্তিশগড়ে নিরাপত্তাবাহিনীকে ঘিরে ধরে গুলিবৃষ্টি, আইইডি বিস্ফোরণে মাওবাদীরা ২২ জনকে হত্যা করায় সাধারণ মানুষ থেকে সব রাজনৈতিক দলই তাদের নিন্দায় মুখর। নিহত জওয়ানরা সাধারণ দরিদ্র ঘরের  সন্তান, এই ভাবাবেগে মাওবাদীদের কঠোর শাস্তির দাবি উঠেছে। তাদের ধিক্কার দিচ্ছে সবাই। কিন্তু ৪৮ বছর বয়সি অসমীয়া লেখিকা নিহত জওয়ানদের জন্য চোখের জল ফেলা, সমবেদনা প্রকাশ দূর অস্ত, তাঁদের নিয়েই কটাক্ষ করেছেন বলে অভিযোগ। ফেসবুক পোস্টে তিনি তাঁদের প্রতি ইঙ্গিত করে লিখেছেন, বেতনভুক পেশাজীবীদের, যারা কর্তব্য পালনে গিয়ে মারা গিয়েছেন, তাঁদের শহিদ বলা চলে না। বললে সেই যুক্তিতে তড়িদাহত হয়ে বিদ্যুত্ দপ্তরের মৃত কর্মীদেরও শহিদের মর্যাদা দিতে হয়। লোকের সেন্টিমেন্ট খুঁচিয়ে তুলবেন না, মিডিয়া।

তাঁর বিরুদ্ধে ‘কুরুচিকর’ ফেস্টবুক পোস্টের অভিযোগে এফআইআর দায়ের করেন উমি ডেকা বরুয়া ও কঙ্কনা গোস্বামী নামে দুজন। শিখাকে  প্রথমে ডেকে পাঠিয়ে জেরা করে, পরে গ্রেফতার করে পুলিশ। রাষ্ট্রদ্রোহিতার ধারার পাশাপাশি ভারতীয় দণ্ডবিধির ১২৪ (এ), ৫০০, ৫০৬ ও তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৪৫ অনুচ্ছেদে মামলা হয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে।

গুয়াহাটি নিবাসী লেখিকা অসমে ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারের কঠোর সমালোচক বলে পরিচিত।

এফআইআরে বলা হয়েছে, তাঁর পোস্টটি আমাদের শহিদদের বলিদানকে অপমান, অসম্মান করেছে। তাতে মিডিয়াকে বলা হয়েছে, ওঁদের পক্ষে যেন সেন্টিমেন্ট তৈরি করা না হয়, ওরা দেশের সেবা করার বিনিময়ে বেতন পান বলে ওদের স্বদেশী বলে না দেখার আবেদন করা হয়েছে।

যদিও গ্রেফতার হওয়ার আগে শিখা স্থানীয় ওয়েব পোর্টাল ইনসাইড এনই-কে বলেন, আমি সত্যিই কী বলতে  চেয়েছি, তা নিয়ে সঠিক আলোচনা হওয়া দরকার। ব্যাপারটা বুঝতে হলে আগে প্রশ্ন করা উচিত শহিদ শব্দের আসল অর্থ কী?

প্রসঙ্গত, ছত্তিশগড়ে নিহত ২২ জওয়ানের দুজন অসমের ছেলে।

 

 

You might also like