Latest News

গঙ্গার ভাঙনে ভয়াবহ পরিস্থিতি মালদা মুর্শিদাবাদে, সাহায্য চেয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি অধীরের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বর্ষাকালে গঙ্গার ভাঙনে প্রতিবছর ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয় বাংলায়। মালদা মুর্শিদাবাদের মতো জেলায় গঙ্গার বিধ্বংসী রূপ কেমন তা সেখানকার মানুষ ভালই জানেন। জেলায় জেলায় এই সমস্যা নিয়ে এবার বর্ষা আসার আগেই তাই প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ হলেন কংগ্রেস সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরী।

শনিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে একটি চিঠি লিখেছেন অধীর বাবু। সেখানে তিনি প্রতিবছর বর্ষায় মালদা মুর্শিদাবাদের কী পরিস্থিতি হয় তার বিস্তারিত বিবরণ দিয়েছেন। মানুষের দুরবস্থার কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে সাহায্য চেয়েছেন তিনি।

অধীর বাবু লিখেছেন, মালদার ফারাক্কা ব্যারেজ থেকে মুর্শিদাবাদের জলঙ্গী পর্যন্ত ৯৪ কিলোমিটার এলাকা প্রতিবছর গঙ্গা নদীর ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। উর্বর জমির বড় বড় চাঁই ভেঙে গঙ্গায় তলিয়ে যায়। শুধু জমি নয়, ক্ষতিগ্রস্ত হন নদী তীরবর্তী এলাকার মানুষজনও।

গঙ্গার ভাঙনে সব হারিয়ে গুজরাত মহারাষ্ট্রের মতো পশ্চিমের রাজ্য গুলোতে চলে যেতে হয় বাংলার মানুষকে, জানিয়েছেন বহরমপুরের সাংসদ। তিনি আরও বলেছেন, বাংলা থেকে নদীর ভাঙনে সব হারিয়ে পশ্চিমে চলে যাওয়া মানুষদের একটা গোটা কলোনি রয়েছে মুম্বইতে।

তাঁর কথায়, মুম্বইতে আশ্রয় নেওয়া সেই সব হারানো মানুষগুলোর কাছে কোনও নথিপত্র নেই। সব তাঁরা ভাঙনে হারিয়েছেন। আর তাই তাঁদের বাংলাদেশী উদ্বাস্তু বলেও দেগে দেওয়া হয় কখনও কখনও। অবিলম্বে এবিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চেয়েছেন অধীর বাবু।

নদীর ভাঙন রুখতে কেন্দ্র ও রাজ্যকে হাত মিলিয়ে একসঙ্গে কাজ করার আবেদন জানিয়েছেন কংগ্রেস নেতা। ইউপিএ সরকারের জমানায় এ ব্যাপারে বেশ কিছু অর্থ বরাদ্দ করেছিল কেন্দ্র সরকার, চিঠিতে তাও স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন তিনি।

এর আগে মুর্শিদাবাদে উন্নয়নে অধীর চৌধুরীর ডাকে সাড়া দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এবার তিনি কী করেন সেটাই দেখার।

এদিকে একই বিষয় নিয়ে আবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও চিঠি লিখেছেন অধীর চৌধুরী। গঙ্গার ভাঙন রোধে কেন্দ্রের পাশাপাশি রাজ্য সরকারকেও তৎপর হওয়ার আর্জি জানিয়েছেন তিনি।

You might also like