Latest News

মমতার সাফ নির্দেশ, পঞ্চায়েতে ৩ বছরের বেশি পোস্টিং নয়, অবিলম্বে বদলি করতে হবে

রফিকুল জামাদার

গত ১৮ অগস্ট রিভিউ মিটিং করে নবান্ন (Nabanna) থেকে জেলা প্রশাসনকে পষ্টাপষ্টি জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল যে, পঞ্চায়েতে সমস্ত ভুয়ো খরচের হিসাব বের করতে হবে। তার এফআইআর দায়ের করে সেই টাকা উদ্ধার করতে হবে। অর্থাৎ নবান্ন এক প্রকার জানিয়ে দিয়েছিল যে, পঞ্চায়েতে চোর ধরো এফআইআর করো।

শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) সম্মতিতে ফের কড়া নির্দেশ গেল জেলাগুলিতে। তাতে বলা হয়েছে, গ্রাম পঞ্চায়েত ও পঞ্চায়েত সমিতিতে যে সব কর্মী একই অফিসে তিন বছরের বেশি সময় ধরে রয়েছেন, তাঁদের অবিলম্বে বদলি করতে হবে। এই নিয়ম কঠোরভাবে পালন করতে হবে। শুধু তা নয়, দ্রুত বদলি করে সেই রিপোর্ট পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দফতরের কাছে পেশ করতে হবে।

সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুর পর রাজ্যের নতুন পঞ্চায়েত মন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব নিয়েছেন রাজ্যের প্রাক্তন কৃষি উপদেষ্টা প্রদীপ মজুমদার। প্রদীপবাবু মুখ্যমন্ত্রীর অত্যন্ত আস্থাভাজন বলেই পরিচিত। সূত্রের খবর, জেলা স্তরে এই নির্দেশ পাঠানোর আগে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করেছেন প্রদীপবাবু।

নবান্নের এক আমলা এ ব্যাপারে শুক্রবার বলেন, আসলে গ্রাম পঞ্চায়েত ও পঞ্চায়েত সমিতির অফিসগুলো হচ্ছে ঘুঘুর বাসা। এক শ্রেণি অসাধু কর্মচারী টাকা নিয়ে নানান অনিয়ম করে বেড়াচ্ছে। ওই আমলার কথায়, পঞ্চায়েতে নির্বাচিত সদস্যরা সবাই যে অসাধু তা নয়। আসলে কর্মচারীদের মধ্যেই অসাধু রয়েছে। তাঁরাই নবনির্বাচিত সদস্যদের যত ঘাতঘোঁত শেখানোর চেষ্টা করে। যাতে তাঁদের পকেট ভারী হয়। এবং তাঁদের কারণে আসলে বদনাম হচ্ছে সরকার।

পর্যবেক্ষকদের মতে, নবান্নের এই নির্দেশ তাৎপর্যপূর্ণ। আর ছ’ থেকে নয় মাসের মধ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচন আসন্ন। তার আগে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যেমন সাংগঠনিক স্তরে স্বচ্ছতার বার্তা দিতে চাইছেন। দলের নেতাদের পই পই করে বলছেন যে পঞ্চায়েত ভোটে কোনও হিংসার ঘটনা যেন না ঘটে। তেমনই মুখ্যমন্ত্রীও পঞ্চায়েত স্তরে প্রশাসনিক স্বচ্ছতা আনতে চাইছেন। গোটা ব্যাপারটাই হয়তো তালমিল করেই ঘটছে।

পঞ্চায়েতে চোর ধরো, এফআইআর করো, কড়া নির্দেশ নবান্নর

You might also like