Latest News

‘ধর্ষণ হলে আগে প্রমাণ দিক, আমরাই থানায় বলব’ সিপিএমের মিছিলের পর বেঁফাস তৃণমূল নেতা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: হাঁসখালি থেকে শুরু করে বোলপুর, নামখানা- পশ্চিমবঙ্গে গত কয়েকদিন ধরে একের পর এক ধর্ষণের ঘটনা উঠে আসছে খবরের শিরোনামে। হাঁসখালি ধর্ষণকাণ্ডের তদন্তভার সিবিআইয়ের হাতে তুলে দিয়েছে হাইকোর্ট। রাজ্যজুড়ে তাই নিয়ে যখন তোলপাড় চলছে তখন মুর্শিদাবাদের (Mursidabad) তৃণমূল নেতার নিদান, ধর্ষণ হলে আগে তাঁর কাছে সেই ধর্ষণের প্রমাণ দিতে হবে। তারপর তিনি পুলিশে খবর দেবেন। তার আগে যদি কোনও ধর্ষণের ঘটনায় কেউ প্রতিবাদ করে, তবে তাদের ‘ডাণ্ডা মেরে ঠান্ডা’ করে দেবেন বলেও জানিয়েছেন সেই নেতা।

আরও পড়ুন: এক টাকায় পেট্রোল! মূল্যবৃদ্ধির অভিনব প্রতিবাদ এই শহরে

মুর্শিদাবাদের (Mursidabad) ভগবানগোলার ব্লক সভাপতি আফরোজ সরকার। তাঁর এলাকায় সম্প্রতি সিপিএমের তরফে হাঁসখালি ধর্ষণকাণ্ডের প্রতিবাদে একটি মিছিল করা হয়েছিল। সেই মিছিলের পরেই এমন প্রতিক্রিয়া দেন আফরোজ। ক্যামেরার সামনে সিপিএমকে তুলোধনা করে বলেন, এভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পশ্চিমবঙ্গ থেকে সরানো যাবে না। যদি সত্যিই ধর্ষণ হয়, আমাদের বলুক। আমরা বড়বাবুকে বলব, ওসি সাহেবকে বলব। প্রমাণ দেখাক যে ধর্ষণ করেছে। এমনি ফালতু ফালতু মিছিল করলে তো হবে না।

এরপর সিপিএমের উদ্দেশে হুমকির সুরে তিনি বলেন, যদি বেশি বাড়াবাড়ি করে, আমি কিন্তু ঠান্ডা করে দেব। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে বেশি যদি উল্টোপাল্টা কথা বলে, ডাণ্ডা মেরে ঠান্ডা করে দেব। আমার নাম আফরোজ সরকার। আমি কোনও পদের ভয় করি না। সভাপতি থাকব কি থাকব না তাতে কোনও যায় আসে না।

ভগবানগোলার ব্লক সভাপতির মুখে এমন কথা শুনে নিন্দার ঝড় বইছে সোশ্যাল মিডিয়া। কেন ধর্ষণ হলে আগে তাঁর কাছে প্রমাণ দিতে হবে, সেই প্রশ্নই তুলছেন সকলে। সিপিএমও এর প্রতিবাদ করেছে। তাদের তরফে বলা হচ্ছে এটাই তৃণমূলের সংস্কৃতি। আর রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর কথাতেই তারা উৎসাহিত হচ্ছে। ব্লকের নেতারা এমন কথা বলছে। কারণ এখন সবাই জানে তৃণমূলের ব্লক সভাপতি মানেই হল থানা। তারাই সবটা করছে। আমরা এতদিন ধরে এটাই বলছিলাম। ভগবানগোলার ব্লক সভাপতি নিজেই তার প্রমাণ দিলেন।

You might also like