Latest News

মুকেশ আম্বানিকে সপরিবারে হত্যার হুমকি দিয়ে ফোন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান মুকেশ আম্বানির (Mukesh Ambani) পরিবারকে ফের প্রাণনাশের (Murder) হুমকি (Blackmail) দেওয়া হয়েছে বলে খবর। জানা গিয়েছে, আজ সকালে মুম্বইয়ে অবস্থিত রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন একটি হাসপাতালের ফোন করে এক ব্যক্তি আটবার হুমকি দেয়, তিন ঘণ্টার মধ্যে আম্বানি পরিবারকে হত্যা করা হবে। এরপর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে।

সরকারি সূত্রে জানা গিয়েছে, এই ঘটনার পর মুকেশ আম্বানির পরিবারের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। সেই সঙ্গে দ্রুত তদন্ত টিম তৈরি করে অভিযুক্তের সন্ধানে জোরদার অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। মুম্বই পুলিশ তিনটি তদন্ত টিম তৈরি করেছে।

গত মাসেই সুপ্রিম কোর্ট মুকেশ ও তাঁর পরিবারের জেড প্লাস সিকিউরিটি বহাল রাখার নির্দেশ দেয়। মুকেশকে কেন সরকারি সুরক্ষা দেওয়া হবে, এই প্রশ্ন তুলে জনস্বার্থের মামলা হয়েছিল ত্রিপুরা হাইকোর্টে। আদালত মুকেশের নিরাপত্তার বিষয়ে সরকারের কাছে রিপোর্ট তলব করে। ত্রিপুরা হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে হওয়া মামলায় সুপ্রিম কোর্ট জেড প্লাস নিরাপত্তা বহাল রাখার পাশাপাশি জানিয়ে দেয়, সিকিউরিটি সংক্রান্ত তথ্য প্রকাশ্যে আনা যাবে না।

আজকের ঘটনার পর পুলিশ ফোন কলগুলি যাচাই করছে। প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে একজন ব্যক্তিই ফোন করেছে। তিনি তিনটি ফোন থেকে মোট আটবার ফোন করেছে।

মুকেশ আম্বানি ও তাঁর পরিবারের সুরক্ষার বিষয়টি দিন দিন উদ্বেগ বাড়াচ্ছে সরকারি মহলে। গত বছর ফেব্রুয়ারিতে, মুম্বইয়ে এই শিল্প সম্রাটের বাড়ির বাইরে থেকে বিস্ফোরক-বোঝাই গাড়ি উদ্ধার করেছিল পুলিশ। তাতে ২০টি জেলটিন স্টিক। তাকে মুকেশ আম্বানি ও তাঁর স্ত্রী নীতাকে হত্যার হুমকি দিয়ে লেখা একটি চিঠিও পাওয়া যায়। তাতে আবার নাম জড়ায় মুম্বই পুলিশেরই এক নামজাদা অফিসার তথা এনকাউন্টার স্পেশ্যালিস্ট শচীন ভাজের। সে এখন জেলে। ঘটনার তদন্ত চালাচ্ছে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ।

Image - মুকেশ আম্বানিকে সপরিবারে হত্যার হুমকি দিয়ে ফোন

এর আগে ২০১৩ সালে আম্বানি পরিবারকে হিজবুল মুজাহিদিন গোষ্ঠীর লোকেরা হত্যার হুমকি দিয়েছিল। তখনই কেন্দ্রীয় সরকার ওই শিল্পকর্তার জন্য জেড প্লাস নিরাপত্তার ব্যবস্থা করে। ২০১৬-তে মুকেশ পত্নী নীতাকে ওয়াই প্লাস নিরাপত্তা দেওয়া হয়। তাদের সন্তানদেরও মহারাষ্ট্র সরকার উপযুক্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছে। মুকেশ ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তা খাতে সরকারকে প্রতি মাসে খরচ মিটিয়ে দেয় রিলায়েন্স গোষ্ঠী।

স্বাধীনতার পরেও দেশের এই জায়গাগুলিতে যেতে লাগে স্পেশাল পারমিট

You might also like