Latest News

Modi KCR: মোদী বিরোধিতার মুখ হতে এবার ‘দিল্লি চলো’ ডাক কেসিআরের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রাজ্যে উৎপাদিত ধানের পুরোটাই ন্যায্য দাম দিয়ে কিনে নিতে হবে কেন্দ্রীয় সরকারকে। এই দাবি নিয়ে আগামীকাল দিল্লি যাবেন তেলেঙ্গানার (Telengana) মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও (Modi KCR)। সঙ্গে যাবেন বেশ কয়েকজন মন্ত্রী। দিল্লিতে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার পরিকল্পনা রয়েছে তাঁর।

‘মৌমাছির কামড়ে’ বন্দি মৃত্যু! বিহারের থানা ঘিরে রণক্ষেত্র, প্রাণ গেল পুলিশেরও

তবে এটা প্রাথমিক কর্মসূচি। সফর ফলপ্রসূ না হলে ক’দিন পরেই দলের বিধায়ক, সাংসদ, পঞ্চায়েত ও পুরসভার পদাধিকারীদের নিয়ে দিল্লি অভিযান করবেন কেসিআর। দলে ইতিমধ্যেই ‘দিল্লি চলো’ ডাক দিয়েছেন তিনি। কাল সোমবার দিল্লির বিমানে ও়ঠার আগে দলের রাজ্য থেকে ব্লক পর্যন্ত সব স্তরের পদাধিকারীদের হায়দরাবাদে ডেকেছেন কেসিআর। সেই বৈঠকে ঠিক হবে কীভাবে দাবি আদায়ে দিল্লিতে দল শক্তির পরীক্ষা দেবে। এমনও হতে পারে তিনি দিল্লি থাকাকালেই রাজ্য থেকে পদাধিকারীদের ডেকে নেবেন। দিল্লির রাজপথে মিছিল, ধর্নার পরিকল্পনা রয়েছে তেলেঙ্গানা রাষ্ট্র সমিতির সুপ্রিমোর।

কেসিআরের এই পরিকল্পনা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে। মনে করা হচ্ছে জোড়া উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে কেসিআরের এই মরিয়া কর্মসূচি। সদ্য পাঁচ রাজ্যের ভোটে বিজেপি ভাল ফল করেছে এবং নরেন্দ্র মোদী বলেই দিয়েছেন, এই ফলাফলেই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে ২০২৪-এ কী হতে চলেছে।

মোদীর এই রাজনৈতিক দম্ভ নিয়ে চর্চা থামার আগেই কেসিআর চাইছেন প্রধানমন্ত্রীর দুয়ারে এমন দাবিপত্র পেশ করতে যা কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষে পূরণ করা সম্ভব নয়। সেই সুযোগে দিল্লিতে দলের শক্তি প্রদর্শনের মধ্য দিয়ে মোদী বিরোধিতার প্রধান মুখ হওয়ার লড়াইয়ে এগিয়ে থাকতে চাইছেন কেসিআর।

দ্বিতীয় কারণ হল আগামী বছর তেলেঙ্গানা বিধানসভা ভোট। ধান হল রাজ্যটির অন্যতম ফসল। কেসিআর কয়েক বছর ধরেই দাবি জানিয়ে আসছেন কেন্দ্রকে এফসিআই মারফৎ পুরো ধান কিনে নিতে হবে। এদিকে, বিজেপি ক্রমশ তাঁর সরকারের বিরুদ্ধে ফণা তুলছে। খাতায় কলমে কংগ্রেস প্রধান বিরোধী দল হলেও বিজেপির বাড়বাড়ন্ত নিয়ে টিআরএস নেতা চিন্তিত। তিনি তাই রাজ্যবাসীর সামনে এটাই তুলে ধরতে চাইছেন, বিজেপি শাসিত কেন্দ্রীয় সরকার চাষিদের কাছ থেকে ধান কিনছে না।

শনিবার চন্দ্রশেখর রাও হায়দরাবাদের অদূরে তাঁর ফার্ম হাউসে দলের প্রবীন নেতা-মন্ত্রীদের নিয়ে বৈঠক করেন। তারপরই নির্দেশ জারি হয়, সোমবার সকালের মধ্যে দলের সব বিধায়ক, সাংসদ এবং পঞ্চায়েত ও পুর প্রতিনিধিদের হায়দরাবাদে হাজির হয়ে যেতে হবে।

চাষিদের স্বার্থে ধান কেনার দাবি পেশ করার পাশাপাশি কেসিআর আসলে জাতীয় রাজনীতির অঙ্ক মেলাতেই এই সময়টি দিল্লি অভিযানের জন্য বেছে নিয়েছেন বলে মনে করছেন অবিজেপি শিবিরের অনেক নেতা। উত্তরপ্রদেশে কঠিন লড়াই জিতে এবং উত্তরাখণ্ড, গোয়া ও মণিপুরে সরকার টিকিয়ে রেখে মোদী এখন ফুরফুরে মেজাজে আছেন। এখন অ-বিজেপি শিবির থেকে কেউই উচ্চগ্রামে মোদী বিরোধিতায় শামিল হননি। কেসিআর সেই সুযোগটাই নিতে চাইছেন। মাস খানেক আগে সেই লক্ষ্যেই মোদীর তেলেঙ্গানা সফর বয়কট করেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী কেসিআরই।

You might also like