Latest News

লুকোচুরি খেলতে খেলতে ট্রেনে চেপে ঝাড়খণ্ড থেকে বাংলায়! আড়াই বছর পর বাড়ি ফিরল খুদে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মা-বাবা স্টেশনে হকারি করছিল। সেইসময় বছর কয়েকের বড় দাদার সঙ্গে লুকোচুরি খেলতে খেলতে ভুল করে মেল ট্রেনে উঠে পড়েছিল বছর সাড়ে চারের করিনা হরিজন। আর নামতে পারেনি। তার আগেই ট্রেন ছেড়ে দেয়। ঝাড়খণ্ড থেকে এসে পৌঁছয় এই বাংলার কলকাতা স্টেশনে। মা-বাবাকে ছাড়া অচেনা জায়গায় এসে কান্নায় ভেঙে পড়ে খুদে করিনা । কলকাতা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। বেশ কয়েক জায়গা ঘুরে তাঁর ঠাঁই হয় বেহালার এক হোমে। কিন্তু মা-বাবাকে ভোলেনি এই খুদে। শেষপর্যন্ত প্রায় আড়াই বছর পর বাড়ি ফিরল করিনা ( Missing Child Found From Kolkata )। এর মাঝেই হিন্দিভাষী মেয়েটি বেশ ভাল বাংলা শিখে গিয়েছে।

বিহারের ( Bihar ) কটিহারের বকিয়া দিয়ারা গ্রামে বাড়ি মন্টু হরিজনের। স্ত্রী রিনাদেবী ও দুই ছেলে, এক মেয়েকে নিয়ে তাঁর সংসার। ঝুড়ি তৈরি করে কোনরকমে সংসার চলে। ২০২০ এর অগষ্টে পরিবার নিয়ে ঝাড়খণ্ডের সাহেবগঞ্জ জেলার তালঝারি এলাকার রেলওয়ে স্টেশনে ঝুড়ি বিক্রি করতে গিয়েছিলেন মন্টু হরিজন। সেখানেই খেলতে খেলতে ভুল করে ট্রেনে উঠে কলকাতায় চলে আসে করিনা।

বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে মূক ও বধির যুবতীর সঙ্গে সহবাস, মাসতুতো দাদা গ্রেফতার

চিৎপুরে কলকাতা স্টেশনের বাইরে দাঁড়িয়ে করিনাকে সেদিন কাঁদতে দেখে উদ্ধার করে কলকাতা পুলিশ। চাইল্ড লাইনের সাহায্যে তাকে রাখা হয় পার্ক সার্কাসের সিন্নি অর্গানাইজেশনে। সেখানে মাত্র তিন মাস থাকে। কিন্তু করিনার কান্নাকাটিতে জেরবার হয়ে ওঠে সিন্নি অর্গানাইজেশন। এরপর করিনাকে বেহালার এক হোমে রাখা হয়। স্থানীয় বাণী নিকেতন প্রাথমিক স্কুলে ভর্তি হয় সে। হিন্দিভাষী মেয়েটি বাংলা স্কুলে ভর্তি হয়ে দ্বিতীয় শ্রেণির পরীক্ষায় নব্বই শতাংশ নম্বর পায়! যা দেখে অভিভূত হয় হোম কর্তৃপক্ষ।

হোমের পক্ষ থেকে গোটা ঘটনা হ্যাম রেডিওকে জানানো হয়। তারা নিজেদের নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে অনুসন্ধান শুরু করে। অবশেষে ঝাড়খণ্ডের সাহেবগঞ্জে করিনার মা-বাবার সন্ধান পাওয়া যায়। বৃহস্পতিবার তাঁরা কলকাতায় এসে করিনাকে নিয়ে যান। মায়ের কাছে ফিরতে পেরে করিনা খুব খুশি। তবে সে জানিয়েছে আবার বাংলায় আসতে চায়। এই খুদে চলে যাওয়ায় কান্নায় ভেঙে পড়েন বাণী নিকেতন প্রাথমিক স্কুলের দিদিমণি থেকে শুরু করে করিনার সহপাঠীরা।

You might also like