Latest News

হাত-পা-মুখ বেঁধে মাঠে তুলে নিয়ে গিয়ে কিশোরীকে ধর্ষণ মালদহে! পলাতক অভিযুক্ত যুবক

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ফের নাবালিকা কিশোরীকে (Minor Girl) ধর্ষণের (Rape) অভিযোগ উঠল মালদায় (Maldah)। রীতিমতো হাত-পা-মুখ বেঁধে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছে, পাশাপাশি একটানা অনেকক্ষণ বেঁধে রেখে চলেছে যৌন নির্যাতনও। এমনটাই দাবি করা হয়েছে কিশোরীর পরিবারের তরফে অভিযুক্ত যুবক পলাতক।

পুলিশ জানিয়েছে, মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুরের কুমেদপুরের ঘটনায় নির্যাতিতা ছাত্রী ও তাঁর পরিবারের অভিযোগ, রাতে শৌচকর্মের জন্যে ঘরের বাইরে বেরিয়েছিল দশম শ্রেণির পড়ুয়া ওই ছাত্রী। সেই সময়েই ওই গ্রামের বাসিন্দা সুলতান আনসারি নামের এক যুবক তাকে পিছন থেকে জাপটে ধরে, দ্রুত মুখে কাপড় গুঁজে দেয়। এর পর হাত-পা-মুখ বেঁধে তাকে তুলে নিয়ে যায় গ্রামের প্রান্তে একটি মাঠের মধ্যে। সেখানেই ওই বাঁধা অবস্থায় যৌন নির্যাতন চালায় যুবক।

নির্যাতিতার অভিযোগ, মাঠের মধ্যে ওই অবস্থায় সে যন্ত্রণায় অসুস্থ হয়ে পড়লে, তাকে নিজের বাড়িতে তুলে নিয়ে যায় অভিযুক্ত সুলতান আনসারি। সেখানে আবারও বারবার তাকে ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ। এর পরে সুলতান আনসারি অল্প সময়ের জন্যে ঘরের বাইরে বেরোতেই ওই কিশোরী চিৎকারে শুরু করে।

অন্যদিকে তাকে খুঁজতে বেরিয়ে পড়েছে তাঁর বাড়ির লোকজন। ইতিমধ্যেই গ্রামের অন্যান্যরাও জড়ো হয়ে যায়। বেগতিক দেখে পালিয়ে যায় সুলতান আনসারি নামের ওই যুবক। নির্যাতিতা ছাত্রীকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্যে স্থানীয় হাসপাতালে আনা হয়। লিখিত অভিযোগ জানানো হয়েছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানায়।

পলাতক সুলতান আনসারির খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ। ঘটনায় এলাকার মানুষের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। দু-এক দিন অন্তরই বলতে গেলে মালদায় এই ধরনের ঘটনা ঘটছে। আতঙ্কিত সাধারণ মানুষ। উদ্বিগ্ন জেলা প্রশাসন।

‘আমি সব করে দেব!’ এই বলে রক্তাক্ত রোগীর হাতের ব্যান্ডেজ খুলে দিল মদ্যপ ডাক্তার! তার পর…

You might also like