Latest News

Migratory Birds: শীতের অতিথিরা এখনও রয়ে গেছে সুন্দরবনে! পশ্চিমের যুদ্ধের আঁচ কি পেয়েছে পরিযায়ীরাও?

দ্য ওয়াল ব্যুরো: তারা শীতের অতিথি (Migratory Birds)। শীতকালে তাদের দেখা পেতে উদগ্রীব হয়ে ওঠেন সকলে। বাংলার নদী, খাল-বিল ডিসেম্বর জানুয়ারি নাগাদ ভরে থাকে পরিযায়ী পাখিদের কলরবে (Sundarbans)। কিন্তু শীত কাটতেই ফের তারা নিজের দেশে ফিরে যায়। এবছর যেন সেই চিরাচরিত নিয়মে খানিক ব্যতিক্রম হয়েছে।

ডিসেম্বর, জানুয়ারি পেরিয়ে এখন মে মাস। বসন্তও বিদায় নিয়েছে বাংলা থেকে। বৈশাখের তীব্র দাবদাহ যখন গ্রামবাংলার নাভিশ্বাস তুলে দিচ্ছিল, নদী-খাল-বিলগুলোতে কিন্তু তখনও ওদের দেখা যাচ্ছিল। মে মাসেও সুন্দরবনে রয়ে গেছে পরিযায়ী পাখিরা (Migratory Birds)। এখনও তাদের অনেকেই দেশে ফেরেনি।

আরও পড়ুন:স্ব-নির্ভর গোষ্ঠীর পাশে কলকাতা বিমানবন্দর, বসছে হস্তশিল্পের দোকান

কিন্তু কেন এমন হল? সময় পেরিয়ে গেলেও কেন ভিনদেশি পাখিরা (Migratory Birds) নির্দিষ্ট গন্তব্যের উদ্দেশে ডানা মেলল না? পরিবেশবিদরা এর কোনও সঠিক কারণ দেখাতে পারেনি। মনে করা হচ্ছে, পশ্চিমে যুদ্ধের আঁচ পেয়ে থাকতে পারে এই পাখিরা, তাই হয়তো অনেকেই এখানে থেকে গেছে, আর ফেরেনি। যুদ্ধের সময় যে কোনও দেশে প্রবল বায়ুদূষণ হয়, সেই সঙ্গে পরিবেশের অন্যান্য আনুষাঙ্গিক ক্ষতিও হয় লাগামছাড়া। তাই পাখিদের অনুকূল পরিবেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সেখানে।

Migratory Birds

প্রতিবছর পরিযায়ী পাখিরা এদেশে আসে ডিসেম্বর-জানুয়ারির ঠান্ডায়। তারপর মার্চ পেরোতে না পেরোতে পাততাড়ি গুটিয়ে নিজেদের দেশে ফিরে যায় তারা। গরমে পরিযায়ী পাখিদের আর দেখা যায় না। কিন্তু এবছর সুন্দরবনের জলে এখনও রয়ে গেছে অনেক ভিনদেশি পাখি। অনেকে বলছেন, কোনও কোনও পাখি হয়তো যুদ্ধ শুরু হয়ে যাওয়ার পর এখানে এসেছে, তারা যুদ্ধের ভয়াবহতা দেখেই এসেছে, তাই আর ফিরে যায়নি।

এবছর ফেব্রুয়ারি নাগাদ সুন্দরবনে সমীক্ষা চালানো হয়েছিল। দেখা গিয়েছিল ৯ হাজার ২৭৫টি পাখি এবার এসেছে। এদের মধ্যে রয়েছে ১৩৬ রকমের পাখির প্রজাতি ছিল। ছিল বিরল গ্রেট নট প্রজাতির ১০৪টি পাখিও! সারা বিশ্বে এই পাখির সংখ্যা এই মুহূর্তে মাত্র হাজার তিনেক।

গতবছর সুন্দরবনে পরিযায়ী পাখির সংখ্যা ছিল ৭ হাজার। এবছর তা হাজার দুয়েক বেড়েছে। পরিবেশবিদরা বলছেন, সুদূর সাইবেরিয়া থেকে উড়ে আসে এই শীতের অতিথিরা। তাছাড়াও দক্ষিণ আমেরিকা, মঙ্গোলিয়া, রাশিয়া এবং ইউক্রেনের জঙ্গল থেকেও কিছু পাখি আসে অনুকূল আবহাওয়া আর খাবারের খোঁজে। এবছর বেশি পাখি এসেছে, আবার গরমেও দেশের উদ্দেশে এখনও রওনা হয়নি তারা। এটা ভাল খবর বলেই মনে করছে বনদফতর।

You might also like