Latest News

টিভি মিডিয়ার দায়বদ্ধতা শূন্য! দাবি দেশের প্রধান বিচারপতির

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সোশ্যাল মিডিয়া (Social Media) এবং টিভি চ্যানেল (Elctronic Media) গুলিতে রোজকার সান্ধ্যকালীন বিচারসভাকে (Media trial) তুলোধনা করলেন ভারতের প্রধান বিচারপতি এনভি রামনা (N V raman)। ইলেকট্রিনিক্স মিডিয়াকে ‘পক্ষপাতদুষ্ট'(Biased), ‘অপর্যাপ্ত তথ্য সম্বলিত’ (ill informed) এবং ‘অ্যাজেন্ডা দ্বারা চালিত’ (Agenda driven)বলে তাঁর দাবি, এগুলি আসলে দেশকে আরও পিছিয়ে দিচ্ছে।

এর আগে বিজেপির প্রাক্তন জাতীয় মুখপাত্র নুপুর শর্মার মন্তব্যের সমালোচনা করে আদালত জানিয়েছিল, এই ধরনের মন্তব্য দেশে সাম্প্রদায়িক হিংসা এবং অশান্তি তৈরি করছে। আদালতের এই মন্তব্যেও সমালোচনার ঝড় ওঠে দেশ জুড়ে। বিচারপতির আজকের বক্তব্য সেই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

‘সোশ্যাল মিডিয়ায় বিচারপতিদের নিয়ে বিচারসভা বসছে। হতে পারে, বিচারপতিরা সঙ্গে সঙ্গে কোনও বিষয়ে মত দিতে পারলেন না। তার মানে সেটা তাঁদের দুর্বলতা বা অসহায়তা ভেবে ভুল করবেন না,’ চাঁচাছোলা মন্তব্য রামনার।

তিনি আরও বলেন, ‘নতুন মিডিয়ারা অসম্ভব ক্ষমতাশালী হওয়া সত্ত্বেও ঠিক-ভুল, ভাল-খারাপ, আসল-নকলের তফাৎ করতে ব্যর্থ। কেসের গতি নির্ধারণে মিডিয়ার বিচারসভা কোনও পথপ্রদর্শক হতে পারে না। অথচ এই মিডিয়াগুলি এমন এমন কেসে ক্যাঙারু কোর্ট বসিয়ে দেয়, যেগুলিতে আমরা বিচারপতিরাও সহজে কোনও সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারি না।’

কোর্টের রায় নিয়ে কম তথ্য সম্বলিত এবং অ্যাজেন্ডা দ্বারা চালিত বিতর্কগুলি গণতন্ত্রের স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর বলেই প্রমাণিত হচ্ছে, দাবি তাঁর। ‘নিজেদের দায়িত্ব ঝেড়ে ফেলে গণতন্ত্রকে দু’ ধাপ পিছনে নিয়ে যাচ্ছেন আপনারা,’ বিস্ফোরক মন্তব্য রামনের! সংবাদপত্রগুলির যদিও বা কিছু দায় থেকে থাকে, টিভি মিডিয়াগুলির দায়বদ্ধতা শূন্যে নেমে এসেছে, মত তাঁর। তবে, রামনার মতে, সবচেয়ে ক্ষতিকর হল সোশ্যাল মিডিয়া।

সব সমস্যা কোর্ট মেটাবে! সরকার, সংসদ আছে কেন? প্রশ্ন দেশের প্রধান বিচারপতির

মিডিয়াকে নিজেদের কাজ এবং শব্দের ব্যবহারের প্রতি নিয়ন্ত্রণ বজায় রাখার আর্জি জানিয়েছেন তিনি। ‘ইলেক্ট্রনিক এবং সোশ্যাল মিডিয়া আরও দায়িত্ববান হোক। ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া বরং মানুষকে শিক্ষিত করতে এবং জাতিকে আরও শক্তি জোগানোর জন্য গলা তুলুক,’ এমনটাই মত ভারতের প্রধান বিচারপতির।

You might also like