Latest News

দিল্লি যাচ্ছেন মমতা, রাজ্যের পাওনা নিয়েও কথা হতে পারে মোদীর সঙ্গে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৫ ডিসেম্বর দিল্লি যাচ্ছেন। সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকেই ওই দিন দিল্লিতে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Mamata Banerjee is going to Delhi)।

ইন্দোনেশিয়ার (Indonesia) বালিতে সদ্য সমাপ্ত জি-২০-র বৈঠকে পরবর্তী সম্মেলন আয়োজনের দায়িত্ব পেয়েছে ভারত। এটা যে কোনও দেশের জন্যই সম্মানের। কেন্দ্র চাইছে সম্মেলনের আয়োজনে রাজ্যগুলিকে তাদের ভূমিকা বুঝিয়ে দিতে। বিদেশি রাষ্ট্রনায়কদের কাছে উন্নত ভারতের ছবি তুলে ধরতে শুধু দিল্লি, মুম্বই নয়, বিভিন্ন রাজ্য ঘুরিয়ে দেখানোর পরিকল্পনা আছে কেন্দ্রীয় সরকারের।

নবান্ন (Nabanna) সূত্রে খবর, মুখ্যমন্ত্রী এই বৈঠকে যোগ দিতে চান। আর এই সুবাদে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফের একান্তে বৈঠকে বসতে চান তিনি। রাজ্যের পাওনা মেটানোর বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকে স্মরণ করিয়ে দিতে চান মুখ্যমন্ত্রী। সূত্রের খবর, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আগামী ৬ ডিসেম্বর তাঁর সচিবালয়ে বৈঠকের জন্য সময় চেয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মাস কয়েক আগেই দিল্লিতে গিয়ে কাগজপত্র সহকারে রাজ্যের বকেয়া পাওনা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে বলে আসেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু অগ্রগতি তেমন কিছু হয়নি। একশো দিনের কাজের প্রকল্পের টাকা এখনও আটকে রেখেছে দিল্লি। গ্রামীণ আবাস যোজনার টাকা নিয়েও দিল্লি রা কাড়ছে না।

তৃণমূল কংগ্রেস মনে করছে, পঞ্চায়েত ভোটের আগে টাকা আটকে দিয়ে দিল্লি রাজ্যবাসীর কাছে শাসক দলকে হেয় করতে চাইছে। একশো দিনের টাকা আটকে দিয়ে বাংলাকে ভাতে মারার চক্রান্ত হচ্ছে বলে তাই পাল্টা অভিযোগ তুলেছে রাজ্যের শাসক দল।

দিন কয়েক আগে ঝাড়গ্রামে সরকারি বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীও এই ব্যাপারে সরব হন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার পরও কাজ না হওয়ায় ক্ষোভ উগরে দিয়ে বলেন, এরপর কি আমাদের দিল্লির পা ধরতে হবে?

সরকারি সূত্রের খবর, জিএসটি বাবদ আদায়ের ভাগবাটোয়ারা নিয়েও রাজ্যের কিছু প্রস্তাব আছে। সেগুলির ব্যাপারেও সুযোগ পেলে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চান মুখ্যমন্ত্রী। জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠক না হওয়ায় বিষয়গুলির নিষ্পত্তি করা যাচ্ছে না।

সাভারকারকে নিয়ে মন্তব্যে ঝড়ের মুখে রাহুল, পাশে দাঁড়ালেন মহাত্মার প্রপ্রৌত্র

You might also like