Latest News

নারীশক্তির প্রথম ধাপ কন্যাশ্রী, প্রকল্পের বর্ষপূর্তিতে টুইট-শুভেচ্ছা মুখ্যমন্ত্রীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) যে জনহিতকর প্রকল্প চালু করেছেন তার মধ্যে অন্যতম কন্যাশ্রী (Kanyashree scheme)। ১৮ বছরের আগে মেয়েদের যাতে বিয়ে রোখা যায়, পড়াশুনা করে সাবলম্বী হতে পারে, সেই কথা মাথায় রেখেই এই প্রকল্প শুরু করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই প্রকল্পকে রাজ্যজুড়ে উন্নীত করার লক্ষ্যেই ১৪ অগস্ট ‘কন্যাশ্রী দিবস’ (Kanyashree Dibwas) পালন করা হয়।

প্রায় ১০ বছর হতে চলল এই প্রকল্পের। শুধু রাজ্য বা দেশে নয়, বিদেশের মাটিতেও এই প্রকল্প সমাদৃত হয়েছে। সেই সাফল্যকে স্বরণ করে এদিন মুখ্যমন্ত্রী টুইট করেন। টুইটে লেখেন, কন্যাশ্রী প্রকল্প সূচনা করা হয়েছিল বাংলাজুড়ে মেয়েদের শক্তি বৃদ্ধি করতে। এই প্রকল্প এখনও সফলভাবে চলছে।

তিনি আরও লেখেন, এই প্রকল্পের সঙ্গে যুক্ত প্রতিটি মেয়েকে কন্যাশ্রী দিবসে বড় স্বপ্ন দেখার জন্য ও নির্ভীকভাবে সেই স্বপ্ন অনুসরণ করার জন্য অভিনন্দন জানাই। এভাবেই ভবিষ্যত উজ্জ্বল করুন।

টাকার অভাবে যাতে মেয়েদের পড়াশুনা বন্ধ না হয়ে যায়, সেই লক্ষ্য নিয়েই পশ্চিমবঙ্গ সরকার এই প্রকল্প শুরু করে। এই প্রকল্প অনুযায়ী, এই প্রকল্প থেকে ছাত্রীরা বছরে ৫০০ টাকা করে বৃত্তি পাবে। ১৮ বছর পর্যন্ত বিয়ে না হওয়া মেয়েদের জন্য রয়েছে এককালীন পঁচিশ হাজার টাকা পাওয়া যায়।

কারা এই সুবিধা পাবে?

১৩ থেকে ১৮ বছর বয়সী মেয়েরা, যাঁরা পড়াশুনা করতে চায় তাঁরাই এই প্রকল্প থেকে সুবিধা পাবে। বার্ষিক ১ লাখ ২০ হাজার বা তার কম আয়, এমন পরিবারের মেয়েরাই এই প্রকল্প থেকে বৃত্তি পাবে।

স্কুলে স্কুলে এই ফর্ম দেওয়া হয়। মহকুমা শাসকের অফিস, ব্লক অফিসেও এই ফর্ম দেওয়া হয়। মেয়েদের স্বনির্ভর করার জন্য এই পদক্ষেপ খুবই ইতিবাচক বলে মত বিশিষ্টদের।

স্বাধীনতা দিবসে বিশেষ প্রদর্শনী ঢাকুরিয়া বিনোদিনী উচ্চ বিদ্যালয়ে, থাকছে চমক

You might also like