Latest News

চ্যালেঞ্জ করছি, ২৪-এ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে না বিজেপি, তখন অন্যরা এক হয়ে যাবে: মমতা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ‘২০২৪-এর লোকসভা ভোটে বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে না। চ্যালেঞ্জ করছি। আর বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পেলেই অন্যরা তখন এক হয়ে যাবে।’ (Mamata attack BJP)

ধর্মতলায় ২১-এর মঞ্চ থেকে বললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। এদিন দীর্ঘ ভাষণের সিংহভাগ সময়ই বিজেপি ও কেন্দ্রীয় সরকাররের বিরুদ্ধে সরব ছিলেন তৃণমূল নেত্রী। ডাক দেন, ‘ভাঙো, বিজেপির কারাগার ভাঙো।’ মমতা বলেন, ‘২৪-এর লোকসভা নির্বাচন ইলেকশন নয়, রিজেকশনের ভোট। বিজেপিকে হটানোর নির্বাচন।’ আরও বলেন, আমাদের গরিবের প্রধানমন্ত্রী চাই, বিত্তবানের প্রধানমন্ত্রী চাই না।

বিরোধী দলের নেতা-নেত্রীদের বিরুদ্ধে ইডি-সিবিআইয়ের অভিযান, রাজ্যের প্রতি আর্থিক বঞ্চনা, সাম্প্রদায়িক বিভাজনের মতো নানা ইস্যুতে এদিন বিজেপি ও কেন্দ্রের মোদী সরকাররে আক্রমণ করেন। তবে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী সহ কোনও বিজেপি নেতার নাম করে কিছু বলেননি এদিন।

বিজেপির সমালোচনায় অবিচল তৃণমূল নেত্রী এদিন বিরোধী ঐক্য নিয়েও তেমন একটা সরব হননি। সদ্যই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন ঘিরে বিরোধী ঐক্যের মুখ হয়েছিলেন মমতা। আবার উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচন নিয়ে তৃণমূল বিরোধী শিবিরের থেকে এখনও দূরে আছে। উপরাষ্ট্রপতি ভোটে এনডিএ প্রার্থী বাংলার সদ্য প্রাক্তন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় এবং বিরোধী প্রার্থী কংগ্রেসের মার্গারেট আলভার মধ্যে কাকে তৃণমূল সমর্থন করবে তা আজ ঘোষণা করতে পারে দল। আজ বিকালে মমতার কালীঘাটের বাড়িতে দলের বৈঠক ডেকেছেন মমতা।

গত দু’বছর করোনার কারণে ধর্মতলায় তৃণমূলের শহিদ দিবসের সমাবেশ না হলেও ভার্চুয়াল সভায় মমতা-সহ তৃণমূল নেতৃত্ব ২০২৪-এর লোকসভা ভোট এবং বিরোধী ঐক্য নিয়ে যথেষ্ট সরব ছিলেন। এদিন বিরোধী ঐক্যের প্রশ্নে নেত্রী গোয়া, ত্রিপুরা, গোয়া, মেঘালয়ে লড়াইয়ের কথা উল্লেখ করে বলেন, ওখানে আমরা বন্ধুদের পাশে থাকব।

ভোটের আগে জাতীয় স্তরের বোঝাপড়া নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী এদিন তেমন কিছু বলেননি। মমতার বার্তা, বিরোধী দলগুলিকে নিজেদের মতো করে বিজেপিকে হারানোর চেষ্টা চালাতে হবে। তাতেই বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারাবে। তখন বিকল্প সরকার গড়ে নিতে কোনও সমস্যা হবে না।

বস্তুত, দিল্লিকে এ যাবৎ হওয়া বিজেপি বিরোধী সব জোট সরকারই ভোটের ফল প্রকাশের পর নিজেদের মধ্যে আলাপ আলোচনা করে তৈরি হয়। ভোটের আগে জোট বা বোঝাপড়া কোনওটাই সেভাবে ছিল না। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের অনেকেই মনে করেন, এখনও ভোটের আগে জাতীয় স্তরে জোট করার মতো বাস্তবিক পরিস্থিতি নেই।

সিপিএম মুখপত্রের ‘রিপোর্টারদের বউরা’ চাকরি পেয়েছিল কী ভাবে? প্রশ্ন মমতার

You might also like