Latest News

তর্পণ বিতর্ক:‌ বিমানকে পাল্টা মদনের, ‘‌আপনি বিধানসভার স্পিকার, তৃণমূলের নন’‌

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মহালায়ার সকালে‌ বাবুঘাটে শুভেন্দু অধিকারী ও দিলীপ ঘোষের ছবিতে মালা দিয়ে বিজেপির রাজনৈতিক মৃত্যু ঘোষণা করেছিলেন কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্র (Madan Mitra)। যা নিয়ে জোর বিতর্ক শুরু হয়েছে। সমালোচনা ও নিন্দার ঝড় উঠেছে ‘কালারফুল’ বিধায়কের কাণ্ডজ্ঞান ও রুচিবোধ নিয়ে। দলের তরফেও মদনের ওই ‘‌বালখিল্যতা’র কড়া নিন্দা করা হয়েছে। তবে মদন অবিচল। আজ, মঙ্গলবার একটি ভিডিওতে মদন তাঁর পরিচিত ‘‌ডোন্ট কেয়ার’‌ ভঙ্গিতে বললেন, ‘‌বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়কে বলছি, আপনি বিধানসভার স্পিকার, তৃণমূলের নন।’‌

সোমবার বিষয়টিতে কড়া প্রতিক্রিয়া দিয়েছিলেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় (Biman Banerjee)। বলেছিলেন ‘এসব পাবলিসিটি পাওয়ার জন্য করছেন। মিডিয়াই মদন মিত্রকে তুলছে!’ মদনের কার্যকলাপকে ভাঁড়ামো বলেও কটাক্ষ করেন তিনি। সেই প্রেক্ষিতেই মদন এদিন বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা করেছেন। মদনের আরও বক্তব্য, ‘‌আমি অত্যন্ত নতমস্তকে তাঁকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। তিনি বলেছেন মদন মিত্র তো এমনিতেই মদন মিত্র। এইসব না করলেই পারতেন। আমি মেনে নিচ্ছি। কিন্তু স্পিকারকে আমি বলি, আপনি কিন্তু বিধানসভার স্পিকার মানে তৃণমূলের স্পিকার নন। আপনার সামনে যখন আমায় অকথ্য গালাগাল, এবং বাইরে রেজিস্টার্ড মাতালের লিস্ট তৈরি করে বিরোধী দলনেতা। বলা হয়, আমি বাটলার পেগ মাপা আমার কাজ। আমি মাতালদের রেজিস্ট্রার্ড মেন্টেন করি। আমি মনে করি, বাইরে কে কী বলছে,, সেটা বিধানসভায় এক্সপাঞ্জ করা যায়না। ঘটনাটি বিধানসভায় হয়নি।’‌

পর্যবেক্ষকদের দাবি, মদন আসলে বলতে চেয়েছেন, বিষয়টি যেহুতু বিধানসভায় হয়নি, তখন স্পিকারের উষ্মা প্রকাশ করার কোনও প্রয়োজন ছিল না। পাশাপাশি অভিযোগ, তাঁকে অকথ্য ভাষায় আক্রমণ করেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী (Shuvendu Adhikari)। মদনের কথায়, ‘‌কথায় কথায় শুভেন্দু বলেন মদন মিত্র মাতাল। উনি বলতেই পারেন। কারণ ওঁর বাবা (‌শিশির অধিকারী)‌ আর আমি সন্ধেবেলা একসঙ্গে বসি। শুভেন্দুর কাজই আমাদের ঢেলে দেওয়া।’‌

সেইসঙ্গে অধ্যক্ষ বিমানের উদ্দেশে মদনের কটাক্ষ, কোনও নিউজ চ্যানেল তাঁকে তোলেনি। চ্যানেল বললেই তিনি প্রভাবিত হন না। চ্যানেলের জোরে তিনি ভোটে জেতেন নি। রাজ্যের যেকোনও জায়গায় তিনি শুভেন্দুকে ভোটে হারাতে প্রস্তুত বলেও চ্যালেঞ্জ ছোঁড়েন মদন। বলেন, ‘‌ববিকেই বলছি। ব্যবস্থা করে দে। তুড়ি মেরে বার করে দেব।’‌

উল্লেখ্য, মদন মিত্রের তর্পণ নিয়ে বেজায় চটেছে বিজেপি। তৃণমূলও বিষয়টি ভালো চোখে নেয়নি। ফিরহাদ হাকিম (Firhad Hakim) সোমবার বলেছেন, ‘মদন কী করেছে জানি না। যদি করে থাকে তবে খুব অন্যায় করেছেন। তৃণমূল কংগ্রেস এইসব ছ্যাবলামো পছন্দ করে না’।


‘সুব্রতদা’ কেন দু’টো গুলি চেয়েছিলেন, একডালিয়ার উদ্বোধনে এসে বললেন মমতা

You might also like