Latest News

বহুদিন লাইভে আসবেন না মদন মিত্র, বেশি ফেসবুক করলে নাকি ফেসলুক নষ্ট! মুষড়ে পড়েছেন ভক্তরা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ৩০ জুন পর্যন্ত ফেসবুক লাইভে আসবেন না মদন মিত্র। ভক্ত-অনুরাগীদের মন ভেঙে দিয়ে এমনটাই ঘোষণা করলেন ‘এমএম।’ কিন্তু এই সিদ্ধান্তের কারণ কী, তা খোলসা করে বলেননি তিনি। মজা করে বলেছেন, বেশি ফেসবুক করলে ফেস নষ্ট হয়। কিন্তু অনেকেই মনে করছেন, বারবার লাইভে এসে বিতর্কিত মন্তব্য করা নিয়ে তাঁর প্রতি দলে অসন্তোষ ঘনিয়েছে। সেই কারণেই তাঁকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এত ঘনঘন লাইভে না আসার।

গত বেশ কয়েক মাস ধরেই মদন মিত্রের ফেসবুক লাইভ মানেই নানা রকম মজার ছলে নিত্যনতুন মন্তব্য। এসব ঘিরে বিতর্কও কম হয়নি। কামারহাটির কালারফুল বিধায়কের ফেসবুক লাইভের জন্য রীতিমতো অপেক্ষা করে থাকত ভক্তকূল। কিন্তু গতকাল, বৃহস্পতিবার ফেসবুক লাইভে এসে বিধায়ক জানিয়ে দিলেন, মাস ছয়েক বিরতি। ৩০ জুন পর্যন্ত কোনও ফেসবুক লাইভ নয়।

সম্প্রতি ফেসবুক লাইভে এসে দলের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে ফেলছিলেন মদন মিত্র। এই নিয়ে তৃণমূলের শৃঙ্খলারক্ষা কমিটির তরফে তাঁকে সতর্কও করা হয়। কমিটির প্রধান, তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও তাঁকে ফোন করেন। এর পরে ফের লাইভে আসেন মদন মিত্র, জানান, সমস্ত সমস্যা মিটে গিয়েছে। কোনও মান-অভিমান নেই। কিন্তু তার পরেই ফেসবুক-ইনস্টা লাইভ বন্ধের সিদ্ধান্তের কথা জানালেন তিনি।

গতকাল লাইভে এসে কামারহাটির তৃণমূল বিধায়ক বলেন, “আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত আমি কোনও ফেসবুক লাইভ, ইনস্টাগ্রাম বা কোনওভাবেই অন্য কোনও সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে আসব না। আমার কাছে কোথা থেকে একটা নির্দেশ এসেছে যে মদন মিত্র তুমি ফেসবুক ছেড়ে দাও। বেশি ফেসবুক কোরো না। যদি বেশি ফেসবুক করলে তোমার ফেসলুকের যে গ্ল্যামার সেটা নষ্ট হয়ে যাবে। তাই যখন নির্দেশ এসেছে আমি করব না।”

মজা করে এ কথা বললেও, এই নির্দেশ কে দিয়েছেন, তা তিনি খোলসা করেননি। অনেকেই মনে করছেন, নির্দেশ এসেছে দলের উঁচুতলা থেকেই। সেটাকেই মজার মোড়কে জামিয়ে দিলেন তিনি।

গতকাল মদন মিত্র আরও বলেন, “আমি ফেসবুক করি তো তৃণমূলের দয়ায়। আমার ফেসবুক মদন মিত্র বা বিধায়ক বলে মানুষ দেখে না। দলের সাধারণ কর্মী হিসেবেই আমার কথা শোনে। তাই আমি তৃণমূলের পক্ষ থেকে বলছি, একদম ব্যস ক্ষতম। মদন মিত্র আর ফেসবুক, ইনস্ট্রা করবে না আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত।”

 

তবে সবশেষে মদন অবশ্য জানিয়েছেন, দলের অনুষ্ঠান বা প্রচার থাকলে তা তিনি ফেসবুকে জানাবেন। কোনও ঘটনা ঘটলে তাও জানাবেন ফেসবুকে। কিন্তু নিছক আড্ডা মারার জন্য আর ফেসবুক লাইভ করবেন না মদন মিত্র।

সম্প্রতি মদন মিত্রের পুত্রবধূ অভিযোগ তুলেছেন মানসিক নির্যাতনের। এই নিয়েও হইহই পড়েছে রাজ্যরাজনীতিতে। অনেকেই মনে করছেন, মদন মিত্রর ইমেজ বড়সড় ধাক্কা খেয়েছে এই অভিযোগে। সেটাও লাইভে না আসার একটি কারণ হতে পারে বলে মনে করছেন অনেকে। সাধারণ মানুষের অস্বস্তিকর প্রশ্নের মুখোমুখি হতে কেই বা চায়!

You might also like