Latest News

Maa Kali: কুমোরটুলির মা কালী পৌঁছলেন লন্ডনের ব্রিটিশ মিউজিয়ামে! সেখানেই স্থায়ী অধিষ্ঠান হবে তাঁর

চৈতালি দত্ত

লন্ডনের ব্রিটিশ মিউজিয়ামে এবার স্থায়ীভাবে অধিষ্ঠিত হবে কুমোরটুলির কালী প্রতিমা (Maa Kali)!

প্রতিবছর বিদেশে দুর্গা পুজো হয় সেকথা সকলের জানা। কিন্তু এই উদ্যোগ অনেকটাই স্বতন্ত্র । ‘গডেস-ফিমেল পাওয়ার ইন ওয়ার্ল্ড বিলিফ’ নামে লন্ডন ব্রিটিশ মিউজিয়ামে নারী শক্তির ক্ষমতায়ন বিষয়ক এক প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। যার মধ্যে পৃথিবীর তিন দেবী, যাঁদের রূদ্র রূপ সুপরিচিত, তাঁরা রয়েছেন। যেমন গ্রিসের শিল্পের দেবী এথেনা, মিশরের যুদ্ধের দেবী সেখমেত এবং ভারতের হিন্দু দেবী মা কালী (Maa Kali)।

কলকাতার কুমারটুলির প্রতিমা শিল্পী কৌশিক ঘোষ কালী মূর্তিটি তৈরি করেছেন। কালো গাত্রবর্ণের কালী মূর্তির হাঁটু পর্যন্ত দুলছে মুণ্ডমালা, পায়ের নীচে শিবের অধিষ্ঠান, পিছনে সোনালী চালচিত্র। মূর্তির ওজন ৩৫ কিলোগ্রাম। এই প্রতিমা তৈরি করতে দেড় মাস সময় লেগেছে।

বিগত ৫৯ বছর ধরে ইউরোপে দুর্গা পুজো হয়ে আসছে লন্ডনের ক্যামডেন শহরে। সেই সুবাদে ব্রিটিশ মিউজিয়াম যখন এই ঈশ্বর ভাবনার উদ্যোগ নেয়, তখন তাঁরা লন্ডন ক্যামডেন দুর্গা পুজো কমিটির উদ্যোক্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে কর্তৃপক্ষ। লন্ডন ক্যামডেন দুর্গা পুজো কমিটির চেয়ারপার্সন ডঃ আনন্দ গুপ্ত এই উদ্যোগের সঙ্গে যুক্ত হন।

ইতিমধ্যে কালী মূর্তি (Maa Kali) পৌঁছে গিয়েছে লন্ডন ব্রিটিশ মিউজিয়ামে। আগামী ১৭ মে এই মূর্তি উন্মোচিত হবে। এই মুহূর্তকে আরও স্মরণীয় করে তুলতে ডঃ আনন্দ গুপ্তের নির্দেশনায় রবীন্দ্রনাথের চিত্রাঙ্গদা নৃত্যনাট্য পরিবেশিত হবে। ডঃ গুপ্ত পেশায় একজন চিকিৎসক হলেও তিনি কলকাতার দক্ষিণীর প্রাক্তনী। দক্ষিণায়ন ইউকের তিনি প্রাণপুরুষ।

লন্ডন দুর্গোৎসব কমিটির চেয়ারপার্সন ডঃ আনন্দ গুপ্ত দ্য ওয়ালকে লন্ডন থেকে জানালেন, ‘ব্রিটিশ মিউজিয়াম লন্ডন দুর্গোৎসব কমিটির সঙ্গে হাত মিলিয়ে প্রথমবার এই ধরনের উদ্যোগে সামিল হয়েছেন। কলকাতার কুমারটুলিতে ফাইবারের মা কালীর মূর্তি তৈরি করেছেন প্রতিমা শিল্পী কৌশিক ঘোষ। ব্রিটিশ মিউজিয়ামকে আমরাই এই শিল্পীর সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দিই। এক ইতিহাসের সাক্ষী হতে চলেছি। হাজির হয়েছেন প্রতিমা শিল্পী কৌশিক ঘোষও। বিভিন্ন ধর্মের আঙ্গিকে নারীদের যে যুগ যুগ ধরে পুজো করা হয় সেই নারী শক্তির জয় গান এখানে করা হবে। এই উৎসবকে আরও মনোজ্ঞ করে তুলতে দক্ষিণায়ন ইউকে-র উদ্যোগে চিত্রাঙ্গদা নৃত্যনাট্যের আয়োজন করা হয়েছে। গুরুদেবের ১৬১তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে এই বিশেষ আয়োজন। খুবই গর্ব অনুভব করছি এমন একটা উদ্যোগের সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে।’

২২৫ কিলোমিটার পথ হেঁটে মারিউপোল থেকে নিরাপদ শহরে এলেন বৃদ্ধ! সঙ্গী পোষ্য কুকুর

You might also like