Latest News

ইদের ছুটিতেও হাইকোর্ট খুলল, মৃত্যুদণ্ডকে চ্যালেঞ্জ করে সওয়াল লস্কর জঙ্গি নঈমের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মঙ্গলবার ইদের ছুটি ছিল কলকাতা হাইকোর্টে (Calcutta High Court)। কিন্তু সেই ছুটির মধ্যেও বিচারপতি জয়মাল্য বাগচী ও বিচারপতি বিভাস পট্টনায়েকের ডিভিশন বেঞ্চে জরুরি শুনানি হল। তার বিরুদ্ধে মৃত্যদণ্ডের সাজাকে চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চের সামনে নিজেই সওয়াল করল লস্কর ই তোইবার (Laskar-e-taiba) জঙ্গি।

ভারতের একাধিক বিস্ফোরণের ঘটনায় নাম জড়িয়েছিল এই জঙ্গির। শুধু পশ্চিমবঙ্গ নয়, দিল্লি ও মুম্বইয়েরও পুলিশের খাতায় নাম আছে তার। অভিযোগ ছিল, সে মানব বোমা তৈরি করত এবং অন্যকে উৎসাহিত করত মানব বোমা তৈরি করতে। তার নাম তার শেখ আব্দুল নঈম। লস্কর-ই-তোইবার সক্রিয় সদস্য ছিল সে।

২০০৭ সালে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে বেনাপোল সীমান্তে তাকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। তার সঙ্গে আরও চারজনকেও। তারপর কেটে যায় ১১ বছর। বনগাঁ আদালতে মামলা চলে। অবশেষে ২০১৮ সালে তাকে ফাঁসির আদেশ শোনায় আদালত।

তামা জমতে থাকে শরীরে, বিরল জিনগত রোগের ওষুধ কমদামে আসতে চলেছে দেশে

এরপরই দিল্লি বিস্ফোরণে নাম জড়িয়ে যায় নঈমের। এনআইএ-এ নিজের হেফাজতে নেয় তাকে। এই রাজ্য থেকে তাকে নিয়ে যাওয়া তিহার জেলে। সেখানেই এতদিন ছিল সে। কিন্তু তখনও তার মাথার ওপর ঝুলছিল বনগাঁ আদালতের ফাঁসির নির্দেশ।

এবার সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে (High Court) মামলা করেছে নঈম। সেই মামলার শুনানি ছিল মঙ্গলবার। বিচারপতি জয়মাল্য বাগচী ও বিচারপতি বিভাস পট্টনায়েকের বিশেষ বেঞ্চে মামলার শুনানি হয়। শুনানির সময়ই নঈম আদালতের সামনে দাবি করে যে, এটা জীবন-মৃত্যুর প্রশ্ন। সে বাঁচতে চায়। তার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগই যে ভুল তা প্রমাণ করতেছারপ্এত

দিন আদালত তাকে সেই সুযোগ দিয়েছে। আদালত তাকে তার দাবি প্রমাণ করার কথা জানিয়ে বলেছে, আগামী ১৭ মে এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে। এদিন নঈমের পক্ষে কোন আইনজীবী ছিলেন না, তবুও আগামী শুনানিতে তাকে একটি জুনিয়র আইনজীবী দিয়ে সাহায্য করা হবে বলে কোর্ট জানিয়েছে।

নঈম একা নয়, ২০০৭ সালে তার সঙ্গে আরও চারজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। নঈম ছাড়াও বাকিদের মধ্যে ছিল পাক নাগরিক মহম্মদ ইউনুস, আবদুল্লাহ ও জম্মু কাশ্মীরের বাসিন্দা মুজাফ্ফর আহমেদ। সবাইকেই ফাঁসির আদেশ শোনানো হয়েছিল। আগামী ১৭ মে পাঁচ জনেরই মরণ বাঁচন নিয়ে করা মামলার শুনানি হবে।

দীর্ঘ গরমের ছুটির বিরোধিতা, উপাচার্যকে চিঠি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের একাংশের

You might also like